মালেক দম্পতির বিচার শুরু

প্রকাশিত: ৪:১৭ অপরাহ্ণ , মে ১১, ২০২২

অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা মামলায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের গাড়িচালক আব্দুল মালেক ও তার স্ত্রী নার্গিস বেগমের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। অভিযোগ গঠনের ফলে মামলার আনুষ্ঠানিক বিচার শুরু হয়েছে।

বুধবার ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৬ -এর বিচারক আল আসাদ মো. আসিফুজ্জামান তাদের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ গঠন করেন। একই সঙ্গে মামলার সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য ৭ জুন দিন ধার্য করেছেন আদালত।

অপরদিকে তাদের আইনজীবী জামিনের আবেদন করেন। আদালত জামিন শুনানির জন্য ১৯ মে দিন ধার্য করেন।

এরআগে ১৮ এপ্রিল মালেক ও তার স্ত্রীর পক্ষে আইনজীবী শাহীনুর ইসলাম মামলার দায় হতে অব্যাহতি চেয়ে শুনানি করেন। দুদকের পক্ষ থেকে আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জ গঠনের আবেদন করা হয়।

উভয়পক্ষের শুনানি শেষে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৬-এর বিচারক আল আসাদ মো. আসিফুজ্জামান আদেশের জন্য ১১ মে দিন ধার্য করেন।

২০২১ সালের ২৭ অক্টোবর মামলা দু’টি তদন্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন দুদকের সহকারি পরিচালক সৈয়দ নজরুল ইসলাম।

ওই বছরের ২১ সেপ্টেম্বর জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের গাড়িচালক আব্দুল মালেক ও তার স্ত্রী নার্গিস বেগমের বিরুদ্ধে চার্জশিট অনুমোদন দেয় দুর্নীতি দমন কমিশন।

মালেক দম্পতির বিরুদ্ধে প্রায় সাড়ে তিন কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ২০২১ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি পৃথক দু’টি মামলা করে দুদক।

অনুমোদিত চার্জশিটে মালেকের বিরুদ্ধে ৯৩ লাখ ৫৩ হাজার ৬৪৮ টাকার সম্পদের তথ্য গোপন এবং এক কোটি ৫০ লাখ ৩১ হাজার ৮১০ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনসহ মোট দুই কোটি ৪৩ লাখ ৮৫ হাজার ৫৫৮ টাকার অবৈধ সম্পদ পাওয়ার তথ্য উল্লেখ করা হয়।

এছাড়া অন্য মামলায় আব্দুল মালেক ও তার স্ত্রী নার্গিস বেগমকে আসামি করা হয়। এ মামলায় নার্গিস বেগমের দুই কোটি ১২ লাখ ৩৫ হাজার ৪৩১ টাকার সম্পদের তথ্য উল্লেখ করা হয়, যার বিপরীতে বৈধ উৎস পাওয়া যায় এক কোটি এক লাখ ৪৩ হাজার ৩৮২ টাকা। অবশিষ্ট এক কোটি ১০ লাখ ৯২ হাজার ৫০০ টাকার সম্পদ অবৈধ উপায়ে অর্জিত। তার বিরুদ্ধে দুদক আইন ২০০৪ এর ২৭ (১) ও ২৬ (২) ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে।

এছাড়া ২০২১ সালের ২০ সেপ্টেম্বর স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের গাড়িচালক আব্দুল মালেককে অস্ত্র আইনের মামলায় এক ধারায় ১৫ বছর ও আরেক ধারায় ১৫ বছরের কারাদন্ডের আদেশ দেন আদালত। তবে দুই ধারায় সাজা একসঙ্গে চলবে বলে বিচারক রায়ে উল্লেখ করেন। ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ রবিউল এ রায় ঘোষণা করেন।

২০২০ সালের ২০ সেপ্টেম্বর ভোরে রাজধানীর তুরাগ এলাকা থেকে গাড়িচালক আবদুল মালেককে গ্রেফতার করে র‌্যাব। এসময় তার কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, একটি ম্যাগাজিন, পাঁচ রাউন্ড গুলি, দেড় লাখ টাকার বাংলাদেশি জাল নোট, একটি ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়।
সূত্র: বাসস