ইলিশ নিয়ে গবেষণায় প্রথম জাহাজ

প্রকাশিত: ৪:৫৫ অপরাহ্ণ , ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২২

দেশে প্রথমবারের মতো নির্মাণ করা হলো ইলিশ গবেষণা জাহাজ। খুলনা শিপইয়ার্ডে নির্মিত এই জাহাজের নাম ‘এমভি বিএফআরআই গবেষণা তরী’। আধুনিক এই জাহাজের মাধ্যমে ইলিশের প্রজনন ও বিচরণক্ষেত্র পর্যবেক্ষণ করা সম্ভব।

বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের ইলিশ গবেষণায় যুক্ত হলো ‘এমভি বিএফআরআই গবেষণা তরী’। গবেষণা জোরদারকরণ প্রকল্পের আওতায় খুলনা শিপইয়ার্ডের নিজস্ব ডিজাইনে এ জাহাজ নির্মাণ করা হয়েছে।

৮৬ ফুট দৈর্ঘ্য ও ১৯ দশমিক ৬৮ ফুট প্রস্থের এ জাহাজে ফিশ ফাইন্ডার এবং অত্যাধুনিক টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থা, অগ্নিনির্বাপণ সরঞ্জাম, নেটিং সিস্টেম ও মিনি হ্যাচারিসহ রয়েছে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি।

নৌ বিভাগের স্থাপতি মোঃ রাসেল খান বলেন, ‘ছয়জন সাইন্টিফিকসহ মোট ১৮ জন ক্রু থাকতে পারবেন এবং এই শীপটি নদীর মোহনা বা কোস্টাল এরিয়ায় ১৫ দিন অবস্থান করতে পারবে।’

এই জাহাজের মাধ্যমে নদ-নদী ও সাগর উপকূলে ইলিশ বিষয়ক গবেষণা পরিচালনা করা হবে। যা ইলিশের উৎপাদন বৃদ্ধিতে সহায়তা করবে।

খুলনা শিপইয়ার্ডের প্রজেক্ট অফিসার মোঃ আব্দুল কাদের বলেন, ‘এর ল্যাবরেটরিতে বিভিন্ন ইক্যুইপমেন্ট আছে যার সাহায্যে সাগর ও উপকূলে দীর্ঘ সময় ধরে ইলিশের গবেষণা কার্যক্রম করা সম্ভব হবে।’

জাহাজটি দেশে তৈরি করায় খরচ কমের পাশাপাশি গুণগত মানও নিশ্চিত করা হয়েছে। আরও বড় জাহাজ তৈরির প্রক্রিয়া চলমান বলেও জানান সংশ্লিষ্টরা।

ডিজাইন এন্ড প্লানিংয়ের জেনারেল ম্যানেজার ক্যাপটেন ফিদা হাসান বলেন, ‘বাংলাদেশ ফিসার ইনস্টিটিউটের জন্য একটি জাহাজ বানিয়েছিলাম মৎস্য গবেষণার জন্য। আর এটি ইলিশ মাছের গবেষণার জন্য তৈরি করেছি এবং সামনে নদীর মোহনায় যে মাছ বিচরণ করছে তাদের নিয়ে গবেষণার জন্য আরও বড় আকারের একটি জাহাজের ডিজাইনের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।’

প্রায় ৮ কোটি টাকা ব্যয়ে জাহাজটি নির্মাণ করতে সময় লেগেছে দুই বছর।

Loading