দাদন ব্যবসায়ীর সুদের টাকা না দিতে পারায় নারী নির্যাতনের অভিযোগ

প্রকাশিত: ৫:৩৯ অপরাহ্ণ , নভেম্বর ৩০, ২০২১


নেত্রকোনায় দাদন ব্যবসায়ীর সুদের লভ্যাংশ না দেয়ায় বাজারে প্রকাশ্যে শ্লীলতাহানি ও ধর্ষণের চেষ্টার চাঞ্চল্যকর এক সংবাদ পাওয়া যায়। আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা করার পর আসামীর ছেলে ও সন্তানরা অনিবন্ধিত ভূঁইফোড় কিছু নিউজ পোর্টালে ব্যক্তিগত শত্রুতার কারণে ভূয়া ও মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ হওয়ায়এই নির্যাতিত পরিবারটিকে আবারও মানহানি কর বিব্রত অবস্থায় ফেলেছে। ঘটানাটি ঘটেছে বারহাট্রা উপজেলার সাহতা ইউনিয়নের সাহতা বাজারে। গত ২১ শে নভেম্বর সকাল ৮ টায় পারভেজের স্ত্রী শিশু কে নিয়ে স্কুলে যাওয়ার পথে সুদখোর সুজনের নেতৃত্বে প্রকাশ্য বাজারে বিথী খানম (৩৬) কে ও শিশু তৃহা কে (১১) ঘরে আটক রেখে নির্যাতন করে এবং শিশুটিকে ভয়ভীতি দেখিয়ে আলাদা করে তার মাকে শ্লীলতাহানি ও ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। এলাকাবাসী ও তার আত্নীয়স্বজন তাদের উদ্ধার করে। এই ঘটনায় বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে নেত্রকোণা আদালতে মামলা রুজু হয়।২৪ নভেম্বর মামলা রুজু হলে সুদখোরের দলবল ক্ষিপ্ত হয়ে অশালীন আচারনসহ ভূঁইফোড় নিউজ পোর্টালে মামলার প্রধান আসামি সুজন মিয়ার ছেলে ইমরান হাসান নিলয় একই দিনে বিথীর স্বামী মেহেদী হাসান পারভেজের বিরুদ্ধে মানহানীকর সংবাদ প্রকাশ করে । প্রকাশ্যের, পরপরই সংবাদ টি এক দিন পর পোর্টাল থেকে অপসারণ করে দেয় এ বিষয়টি নেত্রকোণায় ব্যাপক আলোচনার সৃষ্টি হয়েছে। মূলধারার সাংবাদিকগণ অপ-সাংবাদিকতা রোধের বিপক্ষে তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জ্ঞাপন করেছেন।