তালেবানে টেলিভিশন নাটকে থাকবে না নারী

প্রকাশিত: ১০:৪৫ পূর্বাহ্ণ , নভেম্বর ২২, ২০২১

আফগানিস্তানে টেলিভিশন নাটকে নারীদের নিষিদ্ধ করেছে তালেবান। নতুন নিয়মে, নারী সাংবাদিকসহ উপস্থাপকদেরও পর্দায় হিজাব পরে উপস্থিত হতে বলা হয়েছে। তবে কোন ধরণের হিজাব পরতে হবে তা উল্লেখ করা হয়নি।

সাংবাদিকরা বলছেন, “তালেবান নতুন কিছু নিয়ম জারি করলেও তা অস্পষ্ট এবং সুনির্দিষ্ট ব্যাখ্যা নেই। ক্ষমতা নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার পর নারীদের অধিকার বাস্তবায়নে নানা পদক্ষেপের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তালেবান নেতারা। তবে সেগুলো এখন দৃশ্যমান হচ্ছে না। বরং একের পর এক নিয়ম জারি করা হচ্ছে।”

দেশটির গণমাধ্যমে প্রচার করা হয়েছে তালেবান সরকারের নতুন এই নির্দেশনা। এতে আটটি নিয়মের কথা বলা হয়েছে।

প্রথমত শরিয়া আইনের বিরুদ্ধে যায় এমন সিনেমা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এছাড়া সিনেমার দৃশ্যে পুরুষের অনাবৃত শরীর দেখানো যাবে না।

কমেডি ও বিনোদনমূলক শোতে ধর্মকে অবজ্ঞা করা যাবে না কিংবা আফগানদের কাছে আক্রমণাত্মক বিবেচিত হয় এমন সবকিছু নিষিদ্ধ থাকবে। যে সব বিদেশি মূল্যবোধ প্রচার করে এমন অনুষ্ঠান সম্প্রচার করা যাবে না।

যদিও দেশটির টেলিভশন চ্যানেলগুলো এতোদিন বেশিরভাগ নারী চরিত্রের প্রাধ্যান্য রয়েছে এমন বিদেশি নাটক গুলোই প্রচার করে আসছিল।

দেশটির একটি সাংবাদিক সংগঠনের সদস্য হুজ্জাতুল্লাহ মুজাদ্দেদি বলেছেন, “নতুন বিধিনিষেধের এই ঘোষণা অপ্রত্যাশিত।”

১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত আফগানিস্তানে তালেবানের শাসনকালে নারীদের অধিকার ক্ষুন্ন হওয়ার অভিযোগ রয়েছে আন্তর্জাতিক মহলে। এবারে সেই সমস্যা সমাধানে এবং নারীর অধিকার রক্ষায় বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি দিয়ে আসলেও তালেবানের নতুন সরকারে উচ্চ পর্যায়ে ঠাঁই হয়নি নারীদের। শিক্ষার ক্ষেত্রেও নারীদের জন্য তালেবানের নীতি প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে।

সূত্র: বিবিসি

Loading