এনজিওর মামলায় থানায় মা, বাড়িতে কাঁদছে দুধের শিশু

প্রকাশিত: ১১:১৪ পূর্বাহ্ণ , জুলাই ২৭, ২০২১

গাজীপুরের শ্রীপুরে এনজিওর করা মামলায় এক গৃহবধূকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মাকে ধরে নিয়ে যাওয়ায় ৬ মাসের দুগ্ধপোষ্য শিশুটি অনবরত কান্না করছে।

সোমবার (২৬ জুলাই) বিকেলে স্থানীয় ঠেঙ্গামারা মহিলা সবুজ সংঘ (টিএমএসএস) নামের এনজিওর করা মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত গৃহবধূ শ্রীপুরের বারতোপা এলাকার নুরুল আমিনের স্ত্রী শাহনাজ পারভীন।

শাহনাজের স্বামী নুরুল আমীন বলেন, এনজিও আমাদের ঋণ পরিশোধের প্রত্যয়নপত্র দিয়েছে। এরপরেও তারা আমার স্ত্রীর নামে মামলা করে। এ মামলার বিষয়ে আমরা কেউ কিছু জানতাম না। হঠাৎ করে আজ শ্রীপুর থানা পুলিশ গিয়ে আমার স্ত্রীকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে গেছে।

তিনি আরও বলেন, ৬ মাসের শিশু ফাতেমা তার মার জন্য কান্না করছে। সে এখনো তার মায়ের দুধ ছাড়া কিছুই খায় না। বিকেল থেকেই তার মায়ের জন্য সে কান্নাকাটি করছে।

এ বিষয়ে টিএমএসএসের শ্রীপুর-১ শাখার ব্যবস্থাপক আব্দুল আলীম বলেন, শাহনাজ পারভীন নামে বর্তমানে আমাদের কোনো সদস্য নেই। তবে আগে ছিল। তখন আমি এ শাখার ব্যবস্থাপক ছিলাম না। তার কাছে আমাদের কোনো দেনা-পাওনা নেই। তবে তার বিরুদ্ধে কেন মামলা হলো তা আমি বলতে পারব না। আমার আগে যিনি দায়িত্বে ছিলেন বিষয়টি তার জানা থাকতে পারে।

টিএমএসএসের গাজীপুর আঞ্চলিক কার্যালয়ের ব্যবস্থাপক আতাউর রহমান বলেন, মামলা এবং ওই নারীকে গ্রেপ্তারের বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। জরুরিভাবে স্থানীয় ব্যবস্থাপকের সঙ্গে কথা বলে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শ্রীপুর থানার পরিদর্শক (অপারেশন) গোলাম সারোয়ার বলেন, এনজিওর মামলায় আদালতের পরোয়ানা মূলে ওই গৃহবধূকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আগামীকাল তাকে আদালতে পাঠানো হবে।

এ ঘটনার বিষয়ে গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এসএম তরিকুল ইসলাম বলেন, ঋণের টাকা পরিশোধের পরও মামলা এবং দুধের শিশু রেখে একজন নারীকে গ্রেপ্তার সত্যিই দুর্ভাগ্যজনক। বিষয়টি খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Loading