লস এঞ্জেলেসে মাস্ক বাধ্যতামূলক

প্রকাশিত: ২:১৮ অপরাহ্ণ , জুলাই ১৬, ২০২১

ক্যালিফোর্নিয়ার লস এঞ্জেলেসে টানা ছয়দিন এক হাজারের বেশি নতুন কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হওয়ার পর প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে মাস্ক পরা ফের বাধ্যতামূলক করেছে সেখানকার কর্তৃপক্ষ।

আগামীকাল শনিবার স্থানীয় সময় রাত ১১টা ৫৯ মিনিট থেকে এই নির্দেশনা কার্যকর হতে যাচ্ছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

অতি সংক্রামক ডেল্টা ধরনের কারণে সৃষ্ট সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি মোকাবেলায় যুক্তরাষ্ট্রের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহরের জনস্বাস্থ্য বিষয়ক কর্মকর্তারা যে হিমশিম খাচ্ছেন, নতুন বিধিনিষেধ তারই ইঙ্গিত। কেবল এক কোটি মানুষের আবাসস্থল লস এঞ্জেলেসেই নয় সাম্প্রতিক দিনগুলোতে শনাক্ত রোগী বাড়তে দেখে যুক্তরাষ্ট্রের অনেক এলাকায় মাস্ক বাধ্যতামূলক করাসহ নানান বিধিনিষেধ আরোপ হয়েছে।

“ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এবং জনসমাগম হয় চার দেয়ালের ভেতর এমন সব জায়গায় মাস্ক পরতে বলছি আমরা। টিকা নিয়েছেন, বা নেননি সবাইকে মাস্ক পরতে হবে। তাহলে আমরা সংক্রমণের যে ঊর্ধ্বগতি আমরা দেখছি, তা বন্ধ করতে পারবো,” বৃহস্পতিবার টুইটারে এমনটাই বলেছে লস এঞ্জেলেস কাউন্টি ডিপার্টমেন্ট অব পাবলিক হেলথ। শহরটির হাসপাতালগুলোতে কোভিড-১৯ নিয়ে ভর্তি হওয়া রোগীর সংখ্যাও বাড়ছে। আগের সপ্তাহে লস এঞ্জেলেসে হাসপাতালে ভর্তি কোভিড রোগী ছিল ২৭৫, চলতি সপ্তাহে তা বেড়ে ৪০০ জনে দাঁড়িয়েছে। বুধবার সেখানে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ৯ জনের মৃত্যুও হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ক্যালিফোর্নিয়ার দক্ষিণের এই শহরে নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে দেড় হাজারের বেশি। লস এঞ্জেলেসের পাশাপাশি ক্যালিফোর্নিয়ার আরও কয়েকটি শহরের কর্তৃপক্ষকে ডেল্টা ধরনের বিস্তার ঠেকাতে বিধিনিষেধ দিতে হয়েছে। বৃহস্পতিবার সেক্রেমেন্টো ও ফ্রেসনো কাউন্টিতে চার দেয়ালের ভেতরে মাস্ক বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

টেক্সাসের অস্টিনে টিকা নেননি এমন ব্যক্তি ও সংক্রমণের উচ্চ ঝুঁকিতে থাকা ব্যক্তিদের ভ্রমণ, চার দেয়ালের ভেতর যে কোনো সমাবেশ, রেস্তোরাঁয় খাওয়া এবং দোকানে কেনাকাটা এড়িয়ে চলতে ও মাস্ক পরতে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। কয়েকদিন আগে ক্যালিফোর্নিয়ার ইয়োলো কাউন্টিও চার দেয়ালের ভেতর মাস্ক বাধ্যতামূলক করেছে। মিসৌরির স্প্রিংফিল্ডে গ্রীষ্মকালীন স্কুলে সব শিক্ষার্থী ও শিক্ষককে মাস্ক পরতে বলা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টারস ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের (সিডিসি) দেওয়া তথ্যে নেভাদা, ইউটাহ, ফ্লোরিডা, মিসিসিপিসহ আরও কয়েকটি রাজ্যে সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতির চিত্র দেখা যাচ্ছে। পরিস্থতি নিয়ে উদ্বিগ্ন যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা যারা এখনও টিকা নেননি, তাদেরকে দ্রুত টিকা নিয়ে নিতে অনুরোধ করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রে ১২ ও তার বেশি বয়সী সবাইকে টিকা দেওয়া হচ্ছে।

টিকা গ্রহীতাদের মধ্যে সংক্রমণের হারও কম দেখা যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা। লস এঞ্জেলেসে এখন নতুন শনাক্তদের মধ্যে টিকা নেওয়া রোগী মিলছে মাত্র ০.০৯%।

Loading