ফতুল্লায় ভবনে বিস্ফোরণ, শিশুসহ দগ্ধ ১১

প্রকাশিত: ২:০৯ অপরাহ্ণ , এপ্রিল ২৩, ২০২১

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় একটি ভবনে বিস্ফোরণে শিশুসহ ১১ জন দগ্ধ হয়েছেন। আজ শুক্রবার ভোর ৬টার দিকে ফতুল্লার তল্লার জামাই বাজার এলাকার ওই ভবনে এ বিস্ফোরণ হয়। দগ্ধদের মধ্যে নারী ও শিশু রয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারী পরিচালক আব্দুল্লাহ আল আরিফীন জানান, ভবনটির অন্য ফ্ল্যাট ও আশপাশের ভবনের লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, আল আমিনের মালিকানাধীন তিন তলা ভবনের তৃতীয় তলার বাম পাশের ফ্ল্যাটে দুটি পরিবার থাকে। ভোরে হঠাৎ বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটলে তৃতীয় তলার দেয়াল ভেঙে নিচে পড়ে যায়। আগুনের তাপ ছড়িয়ে পড়ে পাশের ভবনে। ফ্ল্যাটের দুটি কক্ষের পুরো দেয়াল উড়ে গেছে এবং রান্নাঘর ও বাথরুমের দুটি দেয়াল মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এ ঘটনায় দগ্ধ ব্যক্তিদের মধ্যে একই পরিবারের ছয়জন ও আরেক পরিবারের পাঁচজন আছেন।

দগ্ধরা হলো- রং মিস্ত্রি হাবিবুর রহমান (৪৫), লিমন (১৭), সাথী (২২), মীম (১৮), মাহিরা (৩ মাস), পোষাক শ্রমিক আলেয়া বেগম (৩৮), সোনাহার, শান্তি আক্তার (৩০), সামিউল (২২), মনোয়ারা (২২) ও আরেকজনের নাম পাওয়া যায়নি। এদের মধ্যে লিমন, সাথী, মীম, মাহিরা (৩ মাস) ও আলেয়াকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, ভবনের তৃতীয় তলায় গ্যাস লাইনের পাইপ লিকেজ থেকে বিস্ফোরণ হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। দগ্ধ পাঁচজনকে রাজধানীতে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে পাঠানো হয়েছে। অন্যদের নারায়ণগঞ্জ ১০০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ফতুল্লাল মডেল থানা উপরিদশক সোহাগ সাহা জানান, ওই বাড়ির তৃতীয় তলায় বেশ কয়েকটি পরিবার বসবাস করেন। তাদের মধ্যে একটি ফ্লাটে দুটি পরিবার থাকতেন। রাতে সেখানে রান্নাঘরের গ্যাস লাইনের পাইপ থেকে গ্যাস বের হয়ে জমাট বেঁধে থাকে। ভোরে রান্নার জন্য চুলায় আগুন জ্বালাতে গেলেই বিস্ফোরণ ঘটে বলে প্রাথমিকভাবে আমরা জানতে পেরেছি।

এদিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন জেলা প্রশাসন ও তিতাস গ্যাসের সংশ্লিষ্টরা। তারা ঘটনার বিভিন্ন বিষয় তদন্ত করছেন। এর আগে একই এলাকয় একটি মসজিদের বিস্ফোরণে ৩৪ জনের প্রাণহানি ঘটেছিলো।