সংগীতশিল্পী মিতা হক আর নেই

প্রকাশিত: ৯:৫২ পূর্বাহ্ণ , এপ্রিল ১১, ২০২১
সংগীতশিল্পী মিতা হক

রবীন্দ্র সংগীতশিল্পী মিতা হক আর নেই। আজ রোববার সকাল ৬টা ২০ মিনিটে রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর। সংগীতশিল্পী মিতা হক অভিনেতা খালেদ খানের স্ত্রী।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন মিতা হক। তবে কয়েকদিন আগে তিনি করোনামুক্ত হয়েছিলেন। এ ছাড়া দীর্ঘদিন ধরে শারীরিক নানা জটিলতায় ভুগছিলেন। ২০১৬ সাল থেকে তিনি ডায়ালাইসিস করাচ্ছিলেন। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে শনিবার তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়।

পরিবারিক সূ্ত্র জানিয়েছে, আজ বেলা ১১টায় তার মরদেহ ছায়ানটে নেওয়া হবে। এরপর আজই কেরানীগঞ্জে তাকে তার বাবা-মায়ের কবরের পাশে সমাহিত করা হবে।

মিতা হকের জন্ম ঢাকায়, ১৯৬২ সালের সেপ্টেম্বরে। তিনি প্রথমে তার চাচা ওয়াহিদুল হক এবং পরে ওস্তাদ মোহাম্মদ হোসেন খান ও সনজীদা খাতুনের কাছে গান শেখেন। ১৯৭৬ সাল থেকে তিনি তবলাবাদক মোহাম্মদ হোসেন খানের কাছে গান শেখা শুরু করেন। ১৯৭৭ সাল থেকে নিয়মিত তিনি বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বেতারে সংগীত পরিবেশনা করতেন।

এ পর্যন্ত সব মিলিয়ে প্রায় ২০০টি রবীন্দ্রসংগীতে কণ্ঠ দিয়েছেন তিনি। তার এককভাবে মুক্তি পাওয়া মোট ২৪টি অ্যালবাম আছে। এর মধ্যে ১৪টি ভারত থেকে ও ১০টি বাংলাদেশ থেকে। ২০২০ সালে তিনি একুশে পদকে ভূষিত হন। মিতা হক ২০১৬ সালে শিল্পকলা পদক লাভ করেন। এরপর কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৫৬তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে মিতা হককে বাংলা একাডেমির রবীন্দ্র পুরস্কার দেওয়া হয়।

তিনি সুরতীর্থ নামে একটি সংগীত প্রশিক্ষণ দল গঠন করেন। এছাড়া তিনি ছায়ানটের রবীন্দ্রসংগীত বিভাগের প্রধান ছিলেন। তিনি রবীন্দ্রসংগীত সম্মিলন পরিষদের সহ-সভাপতিও ছিলেন।