তিস্তার পানি ও সীমান্তে হত্যা বন্ধে পদক্ষেপ নিতে মোদিকে অবহিত করেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: ২:৩৮ অপরাহ্ণ , মার্চ ২৮, ২০২১

তিস্তার পানি সমাধান ও সীমান্তে হত্যা বন্ধে দ্রুত পদক্ষেপ নিতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে অবহিত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আর করোনার টিকা পাবার ক্ষেত্রে বাংলাদেশকে অগ্রাধিকার দেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন নরেন্দ্র মোদি। ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সফর নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেছেন দেশটির পররাষ্ট্র সচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলা ও বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবদুল মোমেন। 

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে যোগ দিতে দুদিনের সফরে বাংলাদেশে আসেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। দ্বিতীয় দিনে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয় দ্বিপাক্ষিক বৈঠক।

হাসিনা-মোদি শীর্ষ বৈঠকে বাণিজ্যে বাধা দূর, তথ্য-যোগাযোগ সহায়তা ও দুর্যোগ মোকাবেলাসহ ৫টি সমঝোতা স্মারক সই হয়। এছাড়া ভার্চুয়াল মাধ্যমে উদ্বোধন করা হয় ঢাকা-নিউ জলপাইগুড়ি মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেনসহ ৪ প্রকল্প।

আনুষ্ঠানিকতা শেষে নরেন্দ্র মোদি বঙ্গভবনে সৌজন্য সাক্ষাত করেন রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ আবদুল হামিদের সঙ্গে।

মোদির সফরের বিস্তারিত জানাতে সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেন ভারতের পররাষ্ট্র সচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলা। জানান দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক বৈঠক ফলপ্রসূ হয়েছে।

তিস্তা চুক্তির বিষয়ে দুই দেশের সরকার প্রধানের আলোচনায় নরেন্দ্র মোদি কোন মন্তব্য করেননি বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবদুল মোমেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তিস্তার ইস্যু তুলে ধরেছেন। বলেছেন, কয়েক বছর আগে এই ইস্যুতে আমরা মোটামুটিভাবে সমঝোতায় এসেছিলাম আপনি এই ব্যাপারে বিশেষ উদ্যোগ নেন। কারণ এটা আমার দেশবাসীর দাবী। তাছাড়া বাকি ৬টি নদী সম্পর্কে আলোচনা হয়েছে। বলেছেন, এটার একটা জেনারেল ফ্রেমওয়ার্ক ডেভেলভ করেছে।

বিশ্বশান্তি ও স্থিতিশীলতা রক্ষায় ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার বিষয়ে ঐক্যমত্য এসেছে বৈঠকে।