সাতক্ষীরায় যশোরেশ্বরী মন্দিরে মোদি

প্রকাশিত: ১১:৩২ পূর্বাহ্ণ , মার্চ ২৭, ২০২১

সাতক্ষীরায় পৌঁছেছেন বাংলাদেশে সফররত ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। শনিবার (২৭ মার্চ) সকালে সাতক্ষীরার শ্যমনগরে রাজা লক্ষণ সেনের আমলে প্রতিষ্ঠিত যশোরেশ্বরী কালীমন্দিরে পৌঁছালে তাঁকে বরণ করা হয়। সেখানে তিনি বিভিন্ন আচার-আচরণ পালন ও প্রার্থনায় অংশ নিয়েছেন।

এর আগে সকাল ৮টা ৪৫ মিনিটে হেলিকপ্টারযোগে তিনি ঢাকা ছাড়েন।

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের ৫১ পিটের একটি পিট হিসেবে শ্যামনগরের ঈশ্বরপুরে জাগ্রত দেবীর এই তীর্থস্থান পরিদর্শনে আসেন তিনি।

মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে মোদির আগমন ঘিরে পুরো ঈশ্বরপুরে সাজ সাজ রব। কালীমন্দিরকে বিভিন্ন রঙে সাজানো হয়েছে। স্থানীয় এ ছোবহান মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও তার পাশে হেলিপ্যাড প্রস্তুত করা হয়। হেলিপ্যাড থেকে মন্দির পর্যন্ত রাস্তার দু’ধারে টাঙানো হয়েছে বাংলাদশ ও ভারতের পতাকা।

নিরাপত্তা নিশ্চিতে হেলিপ্যাড থেকে মন্দির পর্যন্ত অর্ধশতাধিক সিসি ক্যামেরা স্থাপন করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। আর সর্বোচ্চ নিরাপত্তায় রয়েছে ভারত-বাংলাদেশ যৌথবাহিনী।

জানা গেছে, তিনি সাতক্ষীরার শ্যামনগরে সাড়ে ৪০০ বছরের পুরোনো ঐতিহাসিক যশোরেশ্বরী কালীমন্দির পরিদর্শন ও পূজা-অর্চনা করবেন। একই সঙ্গে তিনি হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকদের সঙ্গে মতবিনিময় করবেন।

সাতক্ষীরা সফর শেষে সেখান থেকে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় যাবেন নরেন্দ্র মোদি। সেখানে বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন তিনি। নরেন্দ্র মোদি টুঙ্গিপাড়ায় পৌঁছার আগেই সেখানে যাবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনিই ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে সেখানে স্বাগত জানাবেন।

বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সমাধিসৌধ কমপ্লেক্সে নরেন্দ্র মোদি একটি গাছের চারা রোপণ করবেন বলে জানা গেছে।

এরপর সেখান থেকে তিনি যাবেন কাশিয়ানীর ওড়াকান্দিতে। সেখানে তিনি হরিচাঁদ ঠাকুরের বাড়িতে শ্রী শ্রী হরিচাঁদ ও গুরুচাঁদ ঠাকুরের মন্দিরে পূজা-অর্চনা করবেন। পরে তিনি মতুয়া সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিদের সঙ্গে মতবিনিময় করবেন। এরপর আবার ঢাকায় ফিরে আসবেন মোদি।