নেত্রকোণায় গৃহবধূর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার,আটক ২

সুস্থির সরকার সুস্থির সরকার

বিভাগীয় প্রধান ময়মনসিংহ

প্রকাশিত: ১২:৫৫ অপরাহ্ণ , ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২১

নেত্রকোণায় দুর্গপুরের ঝানজাইল বাজার সংলগ্ন প্রতিবেশীর ঘরের খাটের নীচ থেকে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শ্বাসরোধে এই গৃহবধূকে হত্যা করা হয়েছে বলে সন্দেহ করছে পুলিশ। যে ঘর থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়েছে সে ঘরের মালিক এক নারীসহ দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ।

গৃহবধূ ঝানজাইল বাজারের বাসিন্দা। পরিবহন ব্যবসায়ী সুকুমার সাহার স্ত্রী শুক্লা সাহা (৪০)।

আটক দুইজন হচ্ছেন, একই এলাকার আরশাদ মিয়ার স্ত্রী রুবিনা আক্তার (৩০) ও তার ছেলে হৃদয় মিয়া (১৮)। আরশাদ মিয়া মাদক মামলায় কারাগারে রয়েছেন।

মঙ্গলবার বিকালে বাড়ি থেকে তাদের আটকের কথা জানিয়ে দুর্গাপুর থানার ওসি শাহ নূর আলম জানান, মা ও ছেলেকে থানায় রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

ওসি শাহ নূর স্থানীয়দের বরাত দিয়ে জানান, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে শুক্লা সাহা বাড়ির কাছে কংশ নদীতে গোসল করতে গিয়ে আর বাসায় ফিরেননি। পরিবারের লোকজন ও স্থানীয়রা বিভিন্নস্থানে খোঁজাখুজি করে না পেয়ে নদীতে খুঁজতে যান। এ সময় নদীর পারে একটি ঘর তালাবদ্ধ করে আঙ্গিণায় ঘরের মালিক রুবিনা আক্তার বসে আছেন। এতে স্থানীয়দের মাঝে সন্দেহ হলে তালা খুলে ঘরে তল্লাশী চালিয়ে খাটের পাশে বস্তাবন্দি অবস্থায় শুক্লা সাহার লাশ দেখতে পান। পরে স্থানীয়রা থানায় খবর দিলে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ সময় স্থানীয়রা তাদের হাতে আটক রুবিনা আক্তার ও তার ছেলে হৃদ কে পুলিশে সোপর্দ করেন।

ওসি আরো জানান, শ্বাসরোধে শুক্লা সাহাকে হত্যার পর বস্তায় ভরে রাখে ঘাতকেরা। শুক্লা সাহার শরীরে থাকা স্বর্ণালংকারের মধ্যে হাতের চুরি, চেইন, কানের দুল, আংটি ও নাকফুল পাওয়া যায়নি। এখনও হত্যার কারণ জানা যায়নি। তবে স্বর্ণালংকার হাতিয়ে নেয়াসহ আরও কোন কারণ রয়েছে কি না এই হত্যার পেছনে অথবা এই হত্যায় আর কেউ জড়িত কি না তা মাথায় রেখে তদন্ত করা হচ্ছে।

লাশ ময়নাতদন্তের জন্যে নেত্রকোণা আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। মামলা দায়েরের পর আটকদের গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে সোপর্দ করা হবে বলে জানান ওসি।