টয়লেট বিতর্কে ট্রাম্পকন্যা ইভাঙ্কা

প্রকাশিত: ৪:৩৩ অপরাহ্ণ , জানুয়ারি ১৬, ২০২১

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মেয়ে ইভাঙ্কা ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছেন তার নিরাপত্তায় থাকা সিক্রেট সার্ভিসের সদস্যরা। নিরাপত্তা ডিউটিতে থাকাকালীন সময়ে তার ফ্ল্যাটের কোন টয়লেট ব্যবহার করতে দেয়া হয়নি। এ কারণে মাসে তিন হাজার ডলার ভাড়ায় টয়লেটের ব্যবস্থা করতে হয়েছে প্রশাসনকে। এ খবর ওয়াশিংটন পোস্টের।

কালোরামায় অবস্থিত ইভাঙ্কার বিশাল বাড়িতে রয়েছে অন্তত ছয়টি টয়লেট। কিন্তু সেগুলোর একটিতেও নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা সিক্রেট সার্ভিস এজেন্টদের ঢুকতে দেননি ট্রাম্পকন্যা।

দেশটির আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে ইভাঙ্কার বাড়ির সিক্রেট সার্ভিস এজেন্টরা প্রথমদিকে পাশে থাকা সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার বাসভবন এবং একটু দূরে বর্তমান ভাইস-প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের বাসার বাথরুম ব্যবহার করতেন।

পরে তাদের জন্য একটি ভ্রাম্যমাণ টয়লেটের ব্যবস্থা করা হয়। কিন্তু এসবের জন্য টাকা গুনতে হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল সরকারকে। ইভাঙ্কা পরিবারের এক প্রতিবেশীর কাছ থেকে টয়লেট ভাড়া নিয়ে প্রতিমাসে তিন হাজার ডলার করে এ পর্যন্ত অন্তত এক লাখ ডলার খরচ করা হয়েছে।

তবে হোয়াইট হাউসের এক কর্মকর্তা এ অভিযোগ অস্বীকার করে দাবি করেন যে, এটি সিক্রেট সার্ভিসেরই সিদ্ধান্ত ছিল, যেন ভেতরের নিরাপত্তা ব্যবস্থার খবর বাইরে না আসে।

কিন্তু হোয়াইট হাউসের এই দাবি মিথ্যা বলে জানিয়েছেন সিক্রেট সার্ভিসের এক মুখপাত্র। তিনি বলেছেন, সংস্থাটি নিরাপত্তা কার্যক্রম পরিচালনায় কী কী উপায়, পদ্ধতি বা সংস্থান ব্যবহার করা হয়েছে তা নিয়ে কখনো কারও সঙ্গে আলোচনা করে না। এমনকি এটি তাদের নীতিতেও নেই।