শরীয়তপুর মাদক বিরোধী বক্তব্য নিয়ে দুই কাউন্সিলর প্রার্থী’র মধ্যে মারামারি

প্রকাশিত: ৯:১৯ অপরাহ্ণ , জানুয়ারি ৯, ২০২১

 

শরীয়তপুর নৌকার পথ সভায় মাদক বিরোধী বক্তব্য নিয়ে দুই কাউন্সিলর প্রার্থী’র মধ্যে মারামারি ঘটনায় কাউন্সিলর প্রার্থী আহত।

৯ জানুয়ারি (শনিবার) বিকেলে সরেজমিনে গিয়ে কর্তব্যরত পুলিশ ও স্থানীয় ভাবে জানা যায়, ধানুকা ৮ নং ওয়ার্ড স্বর্ণঘোষ এলাকায় একটি নির্বাচনী পথসভা চলছিল। এই ওয়ার্ডের বর্তমান কমিশনার আঃ রশিদ সরদারের ভাই আলমগীর সরদার মাদক বিরোধী বক্তব্য দেয়ার সময়। নৌকার প্রার্থী এ্যাড পারভেজ রহমান (জন) এর পেছনে থাকা একই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদপ্রার্থী ফরিদ শেখ বলেন, ওরে মাউত দিছে কে? এই কথার পরেই হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। জনসভায় ৪/৫শ’ লোক উপস্থিত ছিলো।

৮ নং ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর আঃ রশিদ সরদার বলেন, এখানে একটি নির্বাচনি পথসভা ছিলো। পথসভায় আলমগীর নামের একজন মাদক বিরোধী বক্তব্য দেয়ার সময় ফরিদ শেখ ও তার সমার্থক বক্তব্যে কাউন্টার দেয়াতে হট্টগোল সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ বাহীনি এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেন।

এবিষয়ে আহত ফরিদ শেখকে ফোন দিলে তার বড় ভাই জাকির শেখ ফোন রিসিভ করে বলেন, ফরিদ শেখকে মারধর করছে। সে গুরুতর আহত অবস্থায় সদর হাসপাতালে ভর্তি আছে। এই ঘটনায় এমপির ভাই তপু মিয়া,মুক্তিযোদ্ধা আঃ সামাদ তালুকদার, মুক্তিযোদ্ধা রমিজ উদ্দিন শরিফ সহ অনেকেই আহত হয়েছে।

এব্যাপারে পালং মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম উদ্দিন বলেন, আমরা অভিযোগের অপেক্ষায় আছি। অভিযোগ পেলে আমরা আইনগত ব্যবস্থা নিবো। নৌকার মেয়রপ্রার্থী পারভেজ রহমান জন আহত হয়নি।