অভিনেতা আবদুল কাদেরের মৃত্যুর গুজব

প্রকাশিত: ৪:২৬ অপরাহ্ণ , ডিসেম্বর ২৪, ২০২০

ক্যানসার ও করোনায় আক্রান্ত অভিনেতা আবদুল কাদের। গতকাল রাতজুড়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তার মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে পড়ে। সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে অনেকেই এ অভিনেতার মৃত্যুর খবর জানিয়ে পোস্ট দেন ফেসবুকে। কিন্তু পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে আবদুল কাদের এখনও বেঁচে আছেন। অবস্থা জটিল হলেও আগের চেয়ে সুস্থ আছেন তিনি।  

এ বিষয়ে হাসপাতালের ডিউটি ম্যানেজার অভিজিৎ রয় এবং আবদুল কাদেরের পুত্রবধু জাহিদা ইসলাম জেমি জানান, খবরটি একবারে ভুয়া ও ভিত্তিহীন। অভিনেতা এভারকেয়ার হাসপাতালের প্যানক্রিসের বিশেষজ্ঞ ডাক্তার শাহরিয়ারের অধীনে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

এদিকে আবদুল কাদেরের মৃত্যুর খবরে তার পরিবার হয়রানির শিকার হচ্ছেন বলেও জানান তারা। তারা এ ধরণের খবর না ছড়ানোর অনুরোধ জানিয়েছেন।

জাহিদা ইসলাম জেমি বলেন, ‘কারা যে এগুলো করছে, কিছু বুঝতে পারছি না। আমাদেরকে মানসিকভাবে অত্যাচার করা হচ্ছে। গতকাল রাত ৯টা থেকে হয়রানির শিকার হচ্ছি। দেশ-বিদেশ থেকে মানুষজন অনবরত ফোন করছে। প্রথমে যখন খবরটা শুনি আমার হাত-পা ঠান্ডা হয়ে যায়। তারপর হসাপাতালে ফোন দিয়ে জানতে পারলাম তিনি ভালো আছেন। তখন তিনি রাতের খাবার খাচ্ছিলেন। খাওয়া শেষে কথাও বললাম।’

মৃত্যুর গুজবকে দুঃখজনক উল্লেখ করে কাদের পুত্রবধু আরও বলেন, ‘একটা সুস্থ মানুষকে যদি এভাবে মেরে ফেলে তাহলে তার পরিবারের মানুষের কি অবস্থা হয় বোঝেন। এ ধরনের ভুয়া নিউজ ছড়িয়ে হয়রানি করা হচ্ছে। এগুলোর জবাব আমার কাছে নাই।’

উল্লেখ্য, জনপ্রিয় এই অভিনেতাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য গত ৮ ডিসেম্বর চেন্নাইয়ে নেওয়া হয়। সেখানকার হাসপাতালে ১৫ ডিসেম্বর ক্যানসার ধরা পড়ার পর চিকিৎসকেরা জানান, তার অবস্থা সংকটাপন্ন, ক্যানসার সারা শরীরে ছড়িয়ে পড়েছে, যা চতুর্থ স্তরে পৌঁছে গেছেন। শারীরিক দুর্বলতার কারণে তাকে কেমোথেরাপি দেওয়া হচ্ছে না। গত রোববার সন্ধ্যায় অভিনেতাকে ঢাকায় আনা হয় এবং পরদিন ২১ ডিসেম্বর তার শরীরে করোনা শনাক্ত হয়।

আবদুল কাদের নাটক, বিজ্ঞাপন, চলচ্চিত্র—তিন মাধ্যমেই জনপ্রিয়। তিনি জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘ইত্যাদি’র নিয়মিত শিল্পী ছিলেন। কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের লেখা ‘কোথাও কেউ নেই’ ধারাবাহিক নাটকে বদি চরিত্রে অভিনয় করে পরিচিতি পান তিনি। অভিনয়ের পাশাপাশি বেশ কিছু বিজ্ঞাপনচিত্রেও কাজ করেছিলেন কাদের।