খালের দায়িত্ব হস্তান্তর হচ্ছে সিটি কর্পোরেশনের কাছে

প্রকাশিত: ৫:৫৪ অপরাহ্ণ , ডিসেম্বর ১২, ২০২০

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, আগামী জানুয়ারী মাসের মধ্যেই জলাবদ্ধতা নিরসনে খালের দায়িত্ব ঢাকা ওয়াসা থেকে দু’সিটি কর্পোরেশনের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

তিনি আজ রাজধানীর ঢাকা ওয়াসা ভবনে সাধারণ মানুষের মধ্যে সাবান-পানি দিয়ে হাত ধোঁয়ার অভ্যাস ও উন্মুক্ত স্থানে হাত ধোঁয়া নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ঢাকা ওয়াসা ও ওয়াটার এইডের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত ‘ হাত ধোঁয়ার গাড়ি’র উদ্ভোধনী অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন।

মো. তাজুল ইসলাম বলেন, ঢাকা ওয়াসা থেকে দু’সিটি কর্পোরেশনের কাছে রাজধানীর খালগুলোর দায়িত্ব হস্তান্তরের জন্য গঠিত কমিটি কাজ করছে। এই কমিটির রিপোর্ট পাওয়ার পরই হস্তান্তর প্রক্রিয়া শুরু হবে। তিনি বলেন, চলতি ডিসেম্বর মাসের মধ্যে হস্তান্তর প্রক্রিয়া শুরু করা সম্ভব না হলেও জানুয়ারী মাসের মধ্যেই হস্তান্তরের কাজ শেষ হবে।

সভায় ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাকসিম এ খান, স্থানীয় সরকার বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ ইবরাহিম ও ওয়াটার এইডের কান্ট্রি ডিরেক্টর হাসিন জাহান সহ ঢাকা ওয়াসার বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, ঢাকার চারপাশের নদী-নালা ও খাল যারাই দখল করুক না কেন, খুব দ্রুতই সেগুলো দখলমুক্ত করা হবে। তিনি বলেন, যত বড় ক্ষমতাশালীই হোক না কেন, কেউই আইনের ঊর্ধ্বে নয়। দেশে সংবিধান ও আইন আছে। আইন প্রয়োগের মাধ্যমে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মো. তাজুল ইসলাম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় সরকার অত্যন্ত সতর্ক ও প্রস্তুত রয়েছে। তিনি বলেন, করোনাভাইরাসের টেস্টের জন্য দেশে মাত্র একটি পিসিআর ল্যাব ছিল, যার সংখ্যা এখন একশ’র বেশি। রাজধানী ছাড়াও দেশের অন্যান্য হাসপাতালে খুব কম সংখ্যক আইসিইউ ছিল। এখন প্রতি জেলায় উল্লেখযোগ্য সংখ্যক আইসিইউ রয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শীতার জন্য স্বাস্থ্যসেবাসহ করোনাভাইরাসের প্রতিকূল অবস্থা মোকাবেলায় অল্প সময়ের মধ্যে যে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে তা বিশ্বের কম সংখ্যক দেশই করতে পেছে।

মহামারী মোকাবেলায় সরকারের নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ আন্তর্জাতিক মহলেও প্রশংসিত হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করোনাভাইরাসের মহামারী মোকাবেলায় ১ লাখ ২২ হাজার কোটি টাকার বেশি বিশেষ প্রণোদনা ঘোষণা করেছেন।

করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে মুখে মাস্ক পরা ও ঘনঘন হাত ধোঁয়ার কোন বিকল্প নেই উল্লেখ করে তিনি বলেন, হাত ধোঁয়ার গাড়ির সুফল নগরবাসী পাবেন। এতে মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়বে এবং বিনামূল্যে হাত ধোঁয়ার প্রয়োজনীয় সুবিধাদি ও সরবরাহ নিশ্চিত হবে।