হাসপাতালে নির্জন কক্ষে আটকে রেখে হাত-মুখ বেঁধে জোর পূর্বক ধর্ষণ

প্রকাশিত: ১০:৪১ অপরাহ্ণ , নভেম্বর ২৩, ২০২০

ফিরোজ খান

শরীয়তপুর গোসাইরহাট উপজেলায় এক গৃহবধূ (১৯)কে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে।

এই ঘটনায় ২৩ নভেম্বর সোমবার শরীয়তপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে একটি মামলা হয়েছে।

সূত্রে জানা যায়, ধর্ষক রিজভি সরদার শরীয়তপুর সদর উপজেলার দক্ষিন মাহামুদপুর গ্রামের মৃত তেলাম সরদারের ছেলে।

সে চাকুরীর প্রলোভন দেখিয়ে এক গৃহবধু (১৯) কে গোসাইরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। হাসপাতালের ওয়ার্ডবয় আমির হোসেন সরদারের ভাতিজা হওয়ার সুবাদে ২২ নভেম্বর রোববার বেলা ১১টায় গোসাইরহাট উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একটি কক্ষে নিয়ে রিজভি ধর্ষণ করেন ঐ গৃহবধূকে।

মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী এডভোকেট মৃধা নজরুল কবির বলেন, মেয়েটিকে চাকুরীর প্রলোভন দেখিয়ে নির্জন কক্ষে আটকে রেখে হাত-মুখ বেঁধে জোর পূর্বক ধর্ষণ করেছে। বিষয়টি আমরা ট্রাইব্যুনালকে বুঝাতে সক্ষম হয়েছি। ট্রাইব্যুনাল মামলাটি এফআইআর হিসেবে গণ্য করার জন্য সংশ্লিষ্ঠ থানাকে নির্দেশে দিয়েছেন। আমি আশাবাদী আমরা ন্যায় বিচার পাব।