বালাগাল উলা বিকামালিহি কাসাফাদ্দোজা বিজামালিহি

প্রকাশিত: ৯:৫৬ পূর্বাহ্ণ , অক্টোবর ২৬, ২০২০

এ.কে.এম. ফজলুর রহমান মুনসী |

মহান রাব্বুল আলামীন এ পৃথিবীতে যে সকল নবী ও রাসুল প্রেরণ করেছিলেন, তাঁরা সকলেই ছিলেন সত্যবাদী ও বিশ্বস্ত। তাঁরা জান্নাতের শুভ সংবাদ ও জাহান্নামের ভীতিপ্রদর্শন করেছেন। তাঁরা ছিলেন উচ্চমানের চারিত্রিক বৈশিষ্ঠ্যের অধিকারী। তাঁরা ছিলেন স্বীয় সম্প্রদায়ে পরিপূর্ণ মর্যাদায় সকলের চাইতে অগ্রগামী এবং শীর্ষ স্থানের অধিকারী। তাঁরা ছিলেন সর্ব প্রকার বানোয়াট হতে মুক্ত ও পবিত্র, দ্বীন প্রচার কার্যের পারিশ্রমিক গ্রহণ হতে বিরত এবং উম্মতদেরকে আল্লাহপাকের আয়াত পাঠ করে শোনাতে এবং কিতাব ও হিকমাতের শিক্ষা দানে সার্বিকভাবে ব্যস্ত ও রত। পরম করুণাময় আল্লাহপাক নবী ও রাসুলগণের উল্লেখিত বৈশিষ্ঠ্যসমূহ, বিশেষ করে বিশ্বনবী হজরত মোহাম্মদ সোস্তাফা আহমাদ মুজতাবা (সা:) এর মর্যাদা পূর্ণ অধিষ্ঠানসমূহের কথা আল কোরআনে বিস্তারিতভাবে তুলে ধরেছেন।

এরশাদ হয়েছে- (ক) তিনি ছিলেন অঙ্গীকারে সত্যাশ্রয়ী। তিনি ছিলেন রাসুল ও নবী (সুরা মারয়াম : আয়াত ৫৪) (খ) আমরা তোমার নিকট সত্য নিয়ে এসেছি এবং আমরা অবশ্যই সত্যাদী। (সুরা আল হিজর : আয়াত ৬৪)। (গ) আমি তোমাদের হিতাকাক্সক্ষী বিশ্বস্ত। (সুরা আল আরাফ : আয়াত ৬৮)। (ঘ) অবশ্যই তোমাদের সমীপে সুসংবাদদানকারী ও সতর্ককারী আগমন করেছেন। (সুরা আল মায়দাহ : আয়াত ১৯)। (ঙ) আমি তো বিশ্বাসী সম্প্রদায়ের জন্য সুসংবাদ দানকারী সতর্ককারী ছাড়া কিছু নই। (সুরা- আল আরাফ : আয়াত ১৮৮)। (চ) হে প্রিয় হাবীব (সা:) নিশ্চয়ই আপনি উত্তম চরিত্রের উপর প্রতিষ্ঠিত। (সুরা আল কলম : আয়াত ৪১)। (ছ) অবশ্যই আমি তাদেরকে এমন কিতাব দিয়েছি যা নিশ্চিত জ্ঞানের দ্বারা বিশদ ব্যাখ্যা করেছি। তা বিশ্বাসী সম্প্রদায়ের জন্য হেদায়েত ও করুণা। (সুরা আল আরাফ : আয়াত- ৫২)। (জ) আমি তোমদের নিকট দ্বীন প্রচারের জন্য পারিতোষিক কামনা করি না। আমার প্রতিদান তো মহান রাব্বুল আলামীন প্রদান করবেন। (সুরা আশ শোয়ারা : আয়াত ১০৯)। (ঝ) আল্লাহ তায়ালা তাদের মধ্যে তাদেরই শ্রেণিভুক্ত একজন রাসুল প্রেরণ করেছেন। যিনি তাদের কাছে আল্লাহর আয়াত পাঠ করে শোনাবেন, তাদেরকে পবিত্র করবেন এবং কিতাব ও হিকমাত শিক্ষা দিবেন। (সুরা জুময়া : আয়াত-২)। উল্লিখিত আয়াতে কারিমাগুলোর অর্থ ও মর্মের প্রতি গভীর দৃষ্টিতে তাকালে একথা অতিসহজেই অনুধাবন করা যায় যে, সকল নবী ও রাসুল উম্মাতের কাছে আল্লাহ তায়ালার সংবাদ বাহক ও দ্বীনের প্রচারক ছিলেন। কেননা তাঁদের সকল কার্যক্রম তাবলিগ ও আখবারের মধ্যেই বিদ্যমান আছে। কেননা নবীগণ সত্য সংবাদ প্রদান করেন এবং রাসুলগণ আল্লাহর আহকাম কাক্সিক্ষত স্তর পর্যন্ত পৌঁছিয়ে দেন। এটি একটি অত্যন্ত সূ² বিষয়, যা পিয়ারা নবী মোহাম্মদুর রাসুলুল্লাহ (সা:) এর মাধ্যমে পূর্ণতা লাভ করেছে। আর আয়াতে কারিমের উল্লেখিত শব্দের অর্থ নাছিহীম অর্থাৎ যারা সৃষ্টির কল্যাণ কামনা করেন। (নিবরাস : পৃষ্ঠা ২৮ -২৮৩)।