দেশবাসীকে পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন লিটন মাস্টার

প্রকাশিত: ১১:২৩ অপরাহ্ণ , জুলাই ৩০, ২০২০

মোঃ ইব্রাহিম হোসেন, ষ্টাফ রিপোর্টারঃ পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষ্যে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, সমাজ সেবক ও মোহাম্মদপুর থানার ৩১ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য এবং আগামী কাউন্সিলে মোহাম্মদপুর থানার ৩১ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদ প্রার্থী মোঃ মোকলেছুর রহমান খান (লিটন মাস্টার)।

আজ ৩০ জুলাই ২০২০ রোজ বৃহস্পতিবার এক শুভেচ্ছা বার্তায় তিনি বলেন, কুরবানীর ঐতিহাসিক শিক্ষা ও তাৎপর্য নিয়ে পবিত্র ঈদুল আযহা সমাগত। ঈদুল আযহা আমাদেরকে ত্যাগ ও কুরবানীর আদর্শে উজ্জীবিত করে। মহান আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য আল্লাহর উদ্দেশ্যে সবকিছু বিলীন করে দেয়ার চেতনা জাগ্রত করে ঈদুল আযহা। সামাজিক বৈষম্য দূরীকরণ, শোষণমুক্ত ও ইনসাফ ভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠায় কুরবানী আমাদেরকে অনুপ্রেরণা দেয়। ত্যাগ ও কুরবানীর মানসিকতা নিয়ে ব্যক্তিগত, সমাজিক ও রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে ন্যায় এবং ইনসাফ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে ইসলামকে পরিপূর্ণভাবে অনুসরণ করতে হবে। আর এর মাধ্যমেই কেবল মহান আল্লাহ তায়ালার সন্তুষ্টি অর্জন করা সম্ভব

একদিকে করোনা পরিস্থিতির কারণে মানুষের ব্যবসা-বাণিজ্য বন্ধ, চাকুরী-কর্ম হারিয়ে অসহায় হয়ে পড়েছে মানুষ। অপরদিকে বন্যার পানিতে ঘর-বাড়ি তলিয়ে যাওয়ায় মানুষ অত্যন্ত মানবেতর জীবন-যাপন করছে। বন্যায় আক্রান্ত পরিবারে ঈদের আনন্দের পরিবর্তে বিরাজ করছে বুকভরা বেদনা। দেশের বিদ্যমান পরিস্থিতিতে অত্যন্ত ভারাক্রান্ত ও বেদনাহত হৃদয় নিয়ে আমি আমার প্রিয় দেশবাসীকে ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। এবারের ঈদুল আযহায় সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারের মাধ্যমে পারস্পরিক সহযোগিতা নিয়ে অসহায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য আমি দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।

তিনি আরো বলেন, নিজ ও নিজের পরিবার এবং বৃহৎ জনস্বার্থে সরকারি নির্দেশনা মেনে ঈদের নামাজে অংশ গ্রহণ করি। যথাসম্ভব মোবাইলে সকলের খোঁজ খবর নিয়ে কুশলাদি বিনিময় করব। পরম করুনাময়ের অপার কৃপায় সারা পৃথিবীর সকল মানুষ অচিরেই স্বাভাবিক জীবন ফিরে পাবে এই প্রত্যাশা ব্যাক্ত করে দেশবাসীকে জানাই ঈদ মোবারক। আসুন আমরা সবাই সচেতন হই, সুস্থ থাকি। সকলকে ধন্যবাদ।

মোঃ মোকলেছুর রহমান খান (লিটন মাস্টার), দুঃখ-বেদনা ও ভারাক্রান্ত মন নিয়ে বলেন, ঈদুল আযহার দিন থেকেই শোকের মাস আগষ্ট। আমি গভীর শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছি সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। শ্রদ্ধা জানাচ্ছি জাতীয় চার নেতার প্রতি। স্মরণ করছি মুক্তিযুদ্ধের ৩০ লাখ শহিদ এবং ২ লাখ নির্যাতিত মা-বোনকে। শ্রদ্ধা জানাই সকল বীর মুক্তিযোদ্ধাকে।

আমি স্মরণ করছি, ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্টের কালো রাতে ঘাতকদের হাতে নিহত বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব, মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন শেখ কামাল, মুক্তিযোদ্ধা লেফটেন্যান্ট শেখ জামাল ও দশ বছরের ছোট্ট শেখ রাসেলকে-কামাল ও জামালের নবপরিণীতা বধু-সুলতানা কামাল ও রোজী জামাল, মুক্তিযোদ্ধা শেখ আবু নাসেরসহ সকল শহিদকে।