তৃতীয়পক্ষের মাধ্যমে জিম্মি জাহাজে যোগাযোগের চেষ্টা চলছে

প্রকাশিত: ৯:০৭ অপরাহ্ণ , মার্চ ১৩, ২০২৪

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, সোমালিয়ান জলদস্যুদের কবলে থাকা জাহাজের সঙ্গে এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে যোগাযোগ স্থাপন সম্ভব হয়নি। তৃতীয়পক্ষের মাধ্যমে যোগাযোগের চেষ্টা অব্যাহত রাখা হয়েছে।

বুধবার (১৩ মার্চ) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত আন্তর্জাতিক নারী দিবসের সমাপনী অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

জলদস্যুরা ৫০ লাখ ডলার চেয়েছে, নাহলে তাদের মেরে ফেলা হবে বলে হুমকি দেওয়া হয়েছে- স্বজনদের এমন দাবির প্রেক্ষিতে হাছান মাহমুদ বলেন, নাবিকদের ছাড়াতে মুক্তিপণ দেওয়া হবে কিনা, কৌশলগত কারণে এখনই তা প্রকাশ করা হবে না।

জাহাজ আটকের বিষয়টি নিয়ে মন্ত্রিপরিষদে অনুষ্ঠানিকভাবে আলোচনা হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও বিষয়টি নিয়ে সোচ্চার।

চট্টগ্রামের কবির গ্রুপের মালিকানাধীন ২৩টি জাহাজের একটি এমভি আবদুল্লাহ। এর পণ্য পরিবহন ক্ষমতা ৫৮ হাজার টন। জাহাজটি কবির গ্রুপের সহযোগী সংস্থা এসআর শিপিং লিমিটেডের। পণ্যবাহী জাহাজটি কয়লা নিয়ে ভারত মহাসাগর হয়ে মোজাম্বিক থেকে আরব আমিরাতের আল-হামরিয়া বন্দরের দিকে যাচ্ছিল। গন্তব্য ছিল দুবাই।

মোজাম্বিকের মাপুতু বন্দর থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতে যাওয়ার পথে বাংলাদেশ সময় বেলা দেড়টায় জাহাজটিতে উঠে নিয়ন্ত্রণ নেয় সোমালিয়ার জলদস্যুরা। জাহাজটিতে ৫৫ হাজার টন কয়লা রয়েছে। জাহাজে থাকা ২৩ নাবিকের সবাই বাংলাদেশি।

Loading