একনেক সভায় ৬ প্রকল্প পাস

প্রকাশিত: ১০:৫৩ অপরাহ্ণ , জুলাই ২১, ২০২০

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় ৬টি প্রকল্প পাস হয়েছে। প্রায় ১ হাজার ১৩৬ কোটি ৮৪ লাখ টাকা খরচে কুমিল্লার তিতাস নদী পুনঃখনন প্রকল্প, যমুনা তীর ভাঙন রোধ প্রকল্পসহ বিভিন্ন মন্ত্রনালয়ের এ ৬ প্রকল্প পাস হয় একনেক সভায়। এর মধ্যে সরকার দেবে ১ হাজার ২৮ কোটি ৫১ লাখ টাকা এবং বিদেশি ঋণ ও অনুদান ১০৮ কোটি ৩০ লাখ টাকা। 

মঙ্গলবার (২১ জুলাই) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে চলতি অর্থবছরের তৃতীয় একনেক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এদিন সকালে গণভবন থেকে এ সভায় যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। শেরে বাংলা নগরের ন্যাশনাল ইকোনমিক কাউন্সিল এনইসি সম্মেলন কক্ষ থেকে যোগ দেন কৃষিমন্ত্রী, স্বাস্থ্যমন্ত্রী, তথ্যমন্ত্রীসহ অন্যান্য মন্ত্রীরা। সভায় কৃষি, সড়ক, পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়সহ বিভিন্ন মন্ত্রনালয়ের মোট ৬ প্রকল্পের অনুমোদ দেয়া হয়।

একনেক সভা শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী জুম মিটিংয়ের মাধ্যমে বিস্তারিত জানান। আজকে অনুমোদিত প্রকল্পগুলো তুলে ধরে পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের ‘খুলনা শিপইয়ার্ড সড়ক প্রশস্তকরণ ও উন্নয়ন (প্রথম সংশোধিত)’ প্রকল্প; সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের ‘লাঙ্গলবন্দ-কাইকারটেক-নবীগঞ্জ জেলা মহাসড়কের লাঙ্গলবন্দ থেকে মিনার বাড়ী পর্যন্ত সড়ক প্রশস্তকরণ (জেড-১০৬১) (ভূমি অধিগ্রহণ) (প্রথম সংশোধিত) প্রকল্প; পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের ৩টি প্রকল্প যথাক্রমে ‘কুমিল্লা জেলার তিতাস ও হোমনা উপজেলায় তিতাস নদী (লোয়ার তিতাস) পুনঃখনন’ প্রকল্প, ‘গাইবান্ধা জেলার সদর ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলার গোঘাট ও খানাবাড়ীসহ পার্শ্ববর্তী এলাকা যমুনা নদীর ডান তীরের ভাঙন থেকে রক্ষা’ প্রকল্প ও ‘চর ভেডেলপমেন্ট অ্যান্ড সেটেলমেন্ট প্রজেক্ট-ব্রিজিং (অতিরিক্ত অর্থায়ন) (বাপাউবো অংশ)’ প্রকল্প এবং কৃষি মন্ত্রণালয়ের ‘বৃহত্তর ময়মনসিংহ অঞ্চলের ফসলের নিবিড়তা বৃদ্ধিকরণ’ প্রকল্প।

এ সময় কৃষিমন্ত্রী মো. আব্দর রাজ্জাক, তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম, শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, পরিবেশ বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন, ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীরা অংশ নেন।