পুণরায় বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ার আশঙ্কা জানিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড

প্রকাশিত: ৫:২৭ অপরাহ্ণ , জুলাই ১৯, ২০২০

পুণরায় বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ার আশঙ্কার কথা জানিয়েছে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড। শনিবার (১৮ জুলাই) পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। প্রতিবেদনে বলা হয়, আগামী ২০-২১ জুলাই থেকে ৪ দিন পুণরায় ভারতে আসাম, হিমালয় পাদদেশীয় পশ্চিমবঙ্গ ও উত্তর-পূর্ব ভারতে ভারী বৃষ্টিপাত হওয়ার পূর্বাভাস রয়েছে। ফলে দেশের উত্তর,উত্তর-পূর্ব ও মধ্যাঞ্চলে একইভাবে বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এ বিষয়ে সরকারের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুজ্জামান ভূঁইয়া বলেন, পূর্বাভাস তথ্যমতে আগামী ২০ জুলাই হতে ৪ দিন উজানে প্রায় ৮০০ মিমি বৃষ্টিপাত হতে পারে যা দেশের নদ-নদীতে পানির চাপ বাড়াবে। তবে পানি বাড়লেও আগামী ২৬/২৭ জুলাই হতে পদ্মার পানি অব্যাহতভাবে হ্রাস পাওয়া শুরু করতে পারে। জুলাই মাসের শেষ বা আগস্টের প্রথম সপ্তাহে সার্বিক বন্যা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসতে পারে। সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির উন্নতির আশা জানিয়ে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক,এমপি বলেন: পদ্মা নদীর পানি ইতিমধ্যে হ্রাস পাওয়া শুরু করেছে, ফলে আগামী আগামী ২-৩ দিনের মধ্যে মধ্যাঞ্চলের জেলাগুলোতে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি আশা করছি। চলতি বন্যায় বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের বড় কোন ভাঙ্গন হয় নাই। মন্ত্রণালয় এবং পানি উন্নয়ন বোর্ড স্থানীয় জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় যেকোন জরুরী পরিস্থিতি তাৎক্ষণিকভাবে মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় সামগ্রী ও জনবল নিয়ে মাঠ পর্যায়ে প্রস্তুত আছে। প্রসঙ্গত, জুলাই মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে ভারতের আসাম, পশ্চিমবঙ্গ ও উত্তর-পূর্ব ভারতে ৪ দিনে প্রায় ৯০০ মিমি বৃষ্টিপাত হয়। ফলে দেশের উত্তর ও উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে বন্যা সৃষ্টি হয় যা পদ্মা নদীর মাধ্যমে নামার সময় দেশের মধ্যাঞ্চলে অবস্থিত জেলাসমূহ রাজবাড়ি, ঢাকা, মুন্সিগঞ্জ, ফরিদপুর, মাদারীপুর,শরীয়তপুর ও চাঁদপুর জেলার নিম্নাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতি তৈরি করে।