ইউনাইটেড হাসপাতালে আগুন

ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোকে ৩০ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে

প্রকাশিত: ৫:২০ অপরাহ্ণ , জুলাই ১৫, ২০২০

কোভিড-১৯ ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আগুন লেগে মারা যাওয়া পাঁচ রোগীর পরিবারকে ১৫ দিনের মধ্য ৩০ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেয়ার জন্য ইউনাইটেড হাসপাতালে নির্দেশ দিয়েছে হাই কোর্ট।

গত ২৭শে মে রাতে ইউনাইটেড হাসপাতালে আগুনের ঘটনায় চিকিৎসাধীন পাঁচ রোগীর মৃত্যু হয়।

এরা সবাই হাসপাতালটির মূল ভবনের বাইরে একটি অস্থায়ী তাঁবুতে তৈরি করা করোনাভাইরাস ইউনিটে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

ওই তাঁবুটিতেই আগুন লেগেছিল সেদিন রাতে।

মৃত একজন রোগীর স্বজনরা আগেই ক্ষতিপূরণ প্রশ্নে ইউনাইটেড হাসপাতালের সঙ্গে সমঝোতা করেছিল বলে আইনজীবীরা জানিয়েছেন। বাকি পরিবারগুলোকে ৩০ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দিতে বলেছে হাইকোর্ট।

ইউনাইটেড হাসপাতালের পক্ষের অন্যতম আইনজীবী মোস্তাফিজুর রহমান খান বিবিসি বাংলাকে বলছেন, ”ভার্চুয়াল আদালতে আজ শুনানি হয়েছে। আদালত সেখানে সমঝোতার ব্যাপারে জানতে চেয়েছিল। আমরা জানিয়েছি যে, একটি পরিবার ২০ লাখ টাকায় সমঝোতা করেছে। বাকি পরিবারগুলো কোটি কোটি টাকা চাচ্ছে। তখন আদালত অন্তবর্তীকালীন আদেশে বলেছেন, কে কত টাকা পাবেন, সেটা পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানির পর ঠিক হবে। আপাতত আপনারা ৩০ লাখ করে বাকি পরিবারগুলোকে ক্ষতিপূরণ দিন।”

১৫ দিনের মধ্যে এই ক্ষতিপূরণের টাকা দেয়ার আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

তিনি জানান, রিটকারীদের আবেদনে আরো কয়েকটি বিষয় ছিল। যেমন: তারা অবহেলার অভিযোগ এনে ইউনাইটেড হাসপাতালের লাইসেন্স বাতিল এবং ক্ষতিপূরণের জন্য আরো বেশি অর্থ দাবি করেছিলেন। সেসব বিষয় কি হবে, সেটা পূর্ণাঙ্গ আদালতে শুনানির পরেই রায় আসবে। আপাতত চারটি পরিবারকে ৩০ লাখ টাকা করে দেয়ার জন্য তিনি অন্তর্বর্তীকালীন আদেশ দিয়েছেন।

এর আগে গত ২৯শে ইউনাইটেড হাসপাতালকে ১২ই জুলাইয়ের মধ্যে সমঝোতা করতে বলে ১৩ই জুলাই আদেশের জন্য রেখেছিলেন।

সেদিনের আগুনে মারা যাওয়া একজন মাহবুব ইলাহী চৌধুরীর পক্ষে রিটকারী আইনজীবী নিয়াজ মোহাম্মদ মাহবুব বিবিসি বাংলাকে বলছেন, ”আদালত সমঝোতা করতে বলার পর ইউনাইটেড হাসপাতাল দোসরা জুলাই ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোকে চিঠি পাঠিয়েছিল। তারপর তাদের সঙ্গে আমাদের আলোচনায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আমাদের ২০ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণের চূড়ান্ত প্রস্তাব দেয়। একটি পরিবার তাতে রাজি হলেও অন্যরা রাজি হয়নি।”

এই পরিবারটি পাঁচ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দাবি করেছিল।

আদালতে সেসব তথ্য তুলে ধরার পর বাকি চারটি পরিবারকে ৩০ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেয়ার আদেশ দেন আদালত।বিবিসি বাংলা