১ কোটি শিশু ঝরে যাবে বিদ্যালয় থেকে

প্রকাশিত: ৮:৩০ অপরাহ্ণ , জুলাই ১৩, ২০২০

করোনাভাইরাসের কারণে আজ পুরো পৃথিবীর অর্থনীতি স্থবির হয়ে পড়েছে। শিক্ষাঙ্গনের অবস্থাও একই। করোনা পরবর্তী সময়ে বন্ধ থাকা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো আবার চালু হলেও অন্তত ৯৭ লাখ শিশু আর কখনও ক্লাসে না ফেরার ঝুঁকিতে রয়েছে।
আজ সোমবার (১৩ জুলাই) এ তথ্য দিয়েছে সেভ দ্য চিলড্রেন।সংস্থাটির বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে কোভিড-19 নিয়ন্ত্রণে এপ্রিল থেকে বন্ধ থাকায় বিশ্বজুড়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যাচ্ছে না প্রায় ১৬০ কোটি শিক্ষার্থী। যা বিশ্বের মোট শিক্ষার্থীর প্রায় ৯০ শতাংশ।
প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মানব ইতিহাসে এই প্রথমবারের মতো বিশ্বব্যাপী একটি সম্পূর্ণ প্রজন্মের পড়াশোনা ব্যাহত হয়েছে।
তবে এই শিশুদের ঝরে পড়ার কারণ হিসেবে দরিদ্রতা দায়ী করা হয়েছে। করোনা মহামারির কারণে যে অর্থনৈতিক সংকট সৃষ্টি হচ্ছে তাতে আরও নয় কোটি থেকে ১০ কোটি ৭০ লাখ শিশুর শিক্ষায় প্রভাব ফেলবে দরিদ্রতা।
প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, অনেক কন্যাকে শিশুকে বাধ্য করা হবে বাল্যবিয়েতে। ফলে স্থায়ীভাবে অন্তত ৯৭ লাখ শিশুকে বিদ্যালয় ছাড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে সেভ দ্য চিলড্রেন।
তারা আরও সতর্ক করে বলেছে, ২০২১ সালের মধ্যে স্বল্প ও মধ্য আয়ের দেশগুলোর শিক্ষা বাজেট সাত হাজার ৭০০ কোটি ডলার পর্যন্ত কমে যেতে পারে।
প্রতিবেদনটিতে সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে থাকা ১২টি দেশের তালিকা প্রকাশ করেছে। তালিকায় রয়েছে আফ্রিকা মহাদেশের নাইজার, মালি, চাদ, লাইবেরিয়া, গিনি, মৌরিতানিয়া, নাইজেরিয়া, সেনেগাল ও আইভরি কোস্ট এবং এশিয়া মহাদেশের ইয়েমেন, আফগানিস্তান ও পাকিস্তান।