‘হজযাত্রীদের নিবন্ধন ২০২১ সালেও কার্যকর’

প্রকাশিত: ৬:১০ অপরাহ্ণ , জুন ২৪, ২০২০

হজের জন্য চলতি বছরের (২০২০) প্রাক-নিবন্ধন এবং নিবন্ধন যথারীতি ২০২১ (১৪৪২ হিজরি) সালের প্রাক নিবন্ধন এবং নিবন্ধন হিসেবে কার্যকর রাখাসহ আরও কিছু সিদ্ধান্ত নিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়। বুধবার (২৪ জুন)  ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব মো নুরুল ইসলামের সভাপতিত্বে এক সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সভায় আরও কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সেগুলো হচ্ছে, আগামী বছর ২০২১ সালে কোনও কারণে হজ প্যাকেজের ব্যয় বৃদ্ধি বা হ্রাস পেলে তা বর্তমানে  হজযাত্রীর জমাকৃত অর্থের সঙ্গে সমন্বয় করা হবে।

কোনও হজযাত্রী নিবন্ধন বাতিল করলে একইসঙ্গে তার প্রাক নিবন্ধনও বাতিল হয়ে যাবে এবং তাকে নতুন করে প্রাক-নিবন্ধন করে হজে যেতে হবে।

কোনও হজযাত্রী হজের টাকা উত্তোলন করতে চাইলে সরকারি ও বেসরকারি  ব্যবস্থাপনায় হজ যাত্রীদের জন্য তিনি অনলাইনে মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে আবেদন করবেন এবং কোনও প্রকার সার্ভিস চার্জ কাটা ছাড়াই  তাকে তার পুরো অর্থ ফেরত দেওয়া হবে। এক্ষেত্রে তার প্রাক নিবন্ধন বাতিল হয়ে যাবে এবং হজে যেতে চাইলে  নতুন  করে প্রাক নিবন্ধন করতে হবে।

বেসরকারি হজ ব্যবস্থাপনার হজযাত্রীরা  নিবন্ধন বাতিল করে টাকা উত্তোলন করতে চাইলে  তাদের হজ এজেন্সির মাধ্যমে অনলাইনে আবেদন করবেন। মন্ত্রণালয় তা অনুমোদন করা সাপেক্ষে হজ এজেন্সির মাধ্যমে অথবা ব্যাংকের মাধ্যমে তাদের জমাকৃত অর্থ গ্রহণ করবেন।

সরকারি অথবা বেসরকারি ব্যবস্থাপনাযর যেসব হজযাত্রী তাদের জমাকৃত নিবন্ধনের টাকা তুলতে চান তাদের আগামী ১২ জুলাইয়ের (২০২০) পর আবেদন করতে হবে।

সভায় মরহুম প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শেখ মো. আব্দুল্লাহর  আত্মার মাগফিরাত কামনা  করে বিশেষ দোয়া করা হয়।

উল্লেখ্য, এই মুহূর্তে যারা সৌদি আরবে অবস্থান করছেন এ বছর শুধু তারাই হজে অংশগ্রহণ করতে পারবেন বলে সিদ্ধান্ত দিয়েছে দেশটির সরকার। করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ ঠেকাতে সৌদি আরবের এমন ঘোষণার পর ধর্ম মন্ত্রণালয় জানায়, চলতি বছর হজে যাওয়ার জন্য যারা নিবন্ধন করেছেন এবং টাকা জমা দিয়েছেন তারা চাইলে তাদের জমা দেওয়া টাকা যে কোনও সময় ফেরত নিতে পারবেন।