করোনায় বিশ্বে ১৭তম স্থানে বাংলাদেশ

প্রকাশিত: ৮:৩৭ পূর্বাহ্ণ , জুন ১৯, ২০২০

করোনা সংক্রমণের তালিকায় কানাডাকে পেছনে ফেলেছে বাংলাদেশ। বর্তমানে বিশ্বে ১৭ নম্বর স্থানে রয়েছে দেশটি। গত ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়। গত চব্বিশ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ৩ হাজার ৮০৩ জনের শরীরে করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ২ হাজার ২৯২ জনে পৌঁছাল। 

সংক্রমণ পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে দেখা যায়, দেশের ৬৪ জেলাতেই করোনা শনাক্ত হয়েছে। তবে আক্রান্তদের অধিকাংশই ঢাকা, চট্টগ্রাম ও নারায়ণগঞ্জে। এর বাইরে এক হাজারের বেশি করোনা শনাক্ত ব্যক্তি আছে কুমিল্লা, কক্সবাজার, মুন্সীগঞ্জ, গাজীপুর ও নোয়াখালী জেলায়। ময়মনসিংহেও আছে এক হাজারের কাছাকাছি। বর্তমানে আক্রান্ত ব্যক্তির ৪৪ শতাংশ শুধু ঢাকা শহরে। সব মিলে ঢাকা বিভাগে আছেন আক্রান্তের প্রায় ৬৫ শতাংশ। এরপর প্রায় ২০ শতাংশ আছে চট্টগ্রাম বিভাগে। রংপুর বিভাগে ৩ শতাংশ ও বাকি পাঁচ বিভাগে ২ শতাংশেরও কম আক্রান্ত।

দেশে শনাক্ত হওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে ৭১ শতাংশ পুরুষ ও ২৯ শতাংশ নারী। আর বয়স বিবেচনায় এগিয়ে আছেন ২১ থেকে ৪০ বছর বয়সীরা। মোট শনাক্তের ৫৪ শতাংশ এ বয়সীরা। ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সীরা ১৭ শতাংশ, ৫১ থেকে ৬০ বছর বয়সীরা ১১ শতাংশ, ৬০ বছরের বেশি বয়সী ৭ শতাংশ হারে শনাক্ত হয়েছেন। এ ছাড়া ১১ থেকে ২০ বছর বয়সীরা ৭ শতাংশ ও ১০ বছরের কম বয়সীরা ৩ শতাংশ শনাক্ত হয়েছে। দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতদের মধ্যে ৭৭ শতাংশ পুরুষ ও ২৩ শতাংশ নারী। তবে এর বাইরে দেশে করোনার উপসর্গ নিয়ে অনেকেই মারা যাচ্ছে, যা সরকারি হিসাবে যুক্ত হয় না।

আক্রান্ত এক লাখ ছাড়ালেও নমুনা পরীক্ষায় এখনও পিছিয়ে বাংলাদেশ। এখানে এক লাখ ২ হাজার ২৯২ রোগী শনাক্তের বিপরীতে নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে পাঁচ লাখ ৬৭ হাজার ৫০৩টি। বাংলাদেশের ওপরে ১৬তম অবস্থানে থাকা সৌদি আরব নমুনা পরীক্ষা করেছে ১১ লাখ ৬৭ হাজার।

বাংলাদেশের নিচে থাকা কানাডায় নমুনা হয়েছে ২২ লাখ ৫৪ হাজার ৪৮১টি। নমুনা পরীক্ষার হার কম হলেও রোগী শনাক্তের ঊর্ধ্বমুখী হার আগামীতে বাংলাদেশকে তালিকার আরও ওপরে নিয়ে যাবে বলে আশঙ্কা বিশেষজ্ঞদের।