কৃত্রিম সঙ্কট অক্সিজেন ওষুধের

প্রকাশিত: ১:২৩ পূর্বাহ্ণ , জুন ১১, ২০২০

অক্সিজেন এবং করোনাকালীন ওষুধের পর্যাপ্ত সরবরাহ ও মূল্য নিয়ন্ত্রণে ব্যবস্থা নিতে সরকারকে লিগ্যাল নোটিস দেয়া হয়েছে। গতকাল বুধবার সুপ্রিম কোর্ট বারের অ্যাডভোকেট মনিরুজ্জামান লিংকন এ নোটিস দেন। নোটিসের প্রাপক স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব, ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের মহাপরিচালক (ডিজি), ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের মহাপরিচালক (ডিজি) এবং বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশন (বিএসটিআই) মহাপরিচালককে (ডিজি)।

নোটিসে দেশের এই দুর্যোগকালে অক্সিজেনসহ ওষুধের সরবরাহ বন্ধ রেখে কৃত্রিম সঙ্কট সৃষ্টির সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ জানানো হয়। এতে বলা হয়, আগামী ৫ কার্যদিবসের মধ্যে মেডিক্যাল অক্সিজেনসহ ওষুধের পর্যাপ্ত সরবরাহ ও মূল্য নিয়ন্ত্রণে এবং এর কৃত্রিম সঙ্কট সৃষ্টির সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেনÑ অন্যথায় সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার হুঁশিয়ারি দেয়া হয়।

অ্যাডভোকেট মনিরুজ্জামান লিংকন বলেন, দেশে করোনাভাইরাসের সামাজিক সংক্রমণ হয়েছে। দিনে দিনে করোনা রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। এই রোগীদের বিভিন্নভাবে সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে চিকিৎসা দেয়ার জন্য সরকার সার্বিক প্রস্তুতি এবং ব্যবস্থা নিচ্ছে। আমাদের দেশে অধিক জনসংখ্যার কারণে চিকিৎসা ব্যবস্থা অপ্রতুল। তার ওপর করোনা দুর্যোগে যে বিপুলসংখ্যক মানুষ নতুনভাবে সংক্রমিত হচ্ছে তাদের চিকিৎসা দিতে চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানগুলো হিমশিম খাচ্ছে।

সংবাদ মাধ্যমের তথ্য হচ্ছে,করোনা চিকিৎসার জন্য বহুল ব্যবহৃত মেডিক্যাল অক্সিজেন এবং এই সংক্রান্ত ওষুধের বাজারে কৃত্রিম সঙ্কট সৃষ্টি করা হয়েছে। ওষুধগুলো কোনো কোনো ক্ষেত্রে প্রকৃত দামের চেয়ে অনেক বেশি দামে কিনতে হচ্ছে। যা করোনায় বিপর্যস্ত মানুষের জীবন আরও দুর্বিষহ করে তুলেছে। মানুষের প্রাণহানির আশঙ্কা বহুগুণে বাড়ছে।

করোনা মোকাবেলা এবং করোনা মহামারী রোধে সরকারের সার্বিক প্রচেষ্টা সত্তে¡ও এক শ্রেণীর মুনাফালোভী অসাধু ব্যবসায়ী তাদের ব্যক্তিস্বার্থ চরিতার্থ করার জন্য এই দুর্যোগকালীন সময়ে ওষুধের বাজারে কৃত্রিম সঙ্কট সৃষ্টি করেছে। তাদের ওষুধের দাম বৃদ্ধি করার কারণে এই করোনা দুর্যোগকালীন সময়ে মানুষ অত্যন্ত বিপজ্জনক অবস্থায় উপনীত হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা অত্যন্ত জরুরি।