নেত্রকোনার বারহাট্টায় মাদ্রাসা ছাত্রীকে ঘর থেকে তোলে নিয়ে ধর্ষণ, অভিযুক্ত আটক

বুলবুল আহমেদ বুলবুল আহমেদ

ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৩:৫৮ অপরাহ্ণ , মার্চ ১৪, ২০২১

নেত্রকোনার বারহাট্টায় ১২ বছর বয়সী এক মাদরাসা শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগে উঠেছে। অভিযুক্ত ধর্ষক মোজাহিদ ইসলামকে (২৩) আটক করেছে বারহাট্টা থানা পুলিশ ।

থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রবিবার (১৩ মার্চ) সকাল ৯টার দিকে অতিথিপুর বাজারের কম্পিউটার দোকান থেকে আটক মোজাহিদ বারহাট্টা উপজেলার ইসলামপুর গ্রামের শফিকুল ইসলামের ছেলে। অতিথপুর বাজারে তার একটি কম্পিউটারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

ভিকটিমের স্বজনরা জানান, মাদ্রাসা ছাত্রী তার ছয় বছরের ছোট ভাইকে নিয়ে শনিবার দিবাগত রাতে নিজ বসত ঘরে ঘুমিয়েছিলেন। মোজাহিদ মাঝ রাতে বাহির থেকে ঘরের দরজা খুলে তাকে তুলে নিয়ে যায়।পরে অতিথপুর রেলস্টেশনের সন্নিকটে ইসলামপুর বিলে নিয়ে গিয়ে তাকে ধর্ষণ করে ফেলে রেখে যায়।ভিকটিমের মা রাত ৩টার দিকে দেখেন যে  তার মেয়ের ঘরের দরজা খোলা। মেয়েকে কোথাও না পেয়ে তিনি পরিবারের অন্যান্য সদস্যদেরকে বিষয়টি জানায়। পরিবারের লোকজন চারদিকে খোঁজাখুঁিজর এক পর্যায়ে ভোর ৫টার দিকে তাকে ইসলামপুর বিল থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে। পরিবারের লোকজন রবিবার সকালে বিষয়টি বারহাট্টা থানা পুলিশকে জানালে পুলিশ সকাল ৯টার দিকে অতিথপুর বাজারের কম্পিউটার দোকানে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত মোজাহিদকে আটক করে। পরে পুলিশ ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে।নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ টিটু রায় জানান, গাইনী বিভাগের কনসালটেন্ট ভিকটিমের ডাক্তারী পরীক্ষা ও প্রয়োজনীয় নমুনা সংগ্রহ করবেন।

বারহাট্টা থানার অফিসার ইনচার্জ মিজানুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ অভিযুক্ত মোজাহিদের কম্পিউটারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়ে ঘুমন্ত অবস্থায় তিনজনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে মুল অভিযুক্তকে থানা হেফাজতে রেখে বাকী দু জনকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।