বরগুনার আমতলীতে বোরো চাষে ঝুঁকছে ধুকছে কৃষক ধানের চাম বেশী থাকায় গত বছরের তুলনায় ৫ গুন বেশী চাষ।

প্রকাশিত: ২:০৫ পূর্বাহ্ণ , জানুয়ারি ২০, ২০২১

 

বরগুনার আমতলীতে বোরো ধান চাষে ঝুঁকছে কৃষকরা। ধানের দাম বেশী থাকায়গত বছরের তুলনায় এ বছর ৫ গুন বেশী বোরো চাষকরছেন তারা। ভালো ফলনের আশা করছে কৃষকরা। উপজেলা কৃষি বিভাগ বোরো আবাদে কৃষকদের উৎসাহিত করতে এক হাজার ৬’শ কৃষককে উচ্চ ফলনশীল ধানের বীজ সরবরাহ করছে। এতে বোরো চাষে কৃষকদেরআগ্রহ বৃদ্ধি পেয়েছে।
উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানাগেছে, গত বছর আমতলীতে বোরো চাষের লক্ষমাত্রা ধরা হয়ছিল এক হাজার ১০ হেক্টর। এ বছর ওই লক্ষমাত্রা ছাড়িয়ে ৫ হাজার হেক্টর জমিতে বোরো চাষ করছে কৃষকরা।ধানের দাম বেশী থাকায় গত বছরের তুলনায় এ বছর ৫ গুন বেশী জমিতে বোরো চাষ করছে কৃষকরা। বোরো ধান চাষের উপযুক্ত সময় মধ্য কার্তিক থেকে শুরু করে ফাল্গুন মাসের মাঝামাঝি সময় পর্যন্ত। উচ্চ ফলনশীল জাতের বিরি-২৮, বিরি-২৯,বিরি-৪৭ ও বিরি-৫৮ ধান চাষ করছে কৃষকরা। বীজতলা থেকে শুরু করে পাঁচ মাসের মধ্যে উচ্চ ফলনশীল বোরো ধানের ফলন আসে। আমতলীর কৃষকরা এখন বোরো চাষে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। এদিতে বোরো ধান চাষে কৃষকদের আগ্রহী করে তুলতে উপজেলা কৃষি বিভাগ এক হাজার ৬’শ জন কৃষককে উচ্চ ফলনশীল বোরো ধানের বীজ সরবরাহ করেছে।এতে কৃষকরা বোরো ধান চাষে আরো বেশী ঝুঁকে পড়েছেন।
মঙ্গলবার সরেজমিনে ঘুরে দেখাগেছে, উপজেলার গুলিশাখালী, আঠারোগাছিয়া, কুকুয়া, হলদিয়া, চাওড়া, আমতলী সদর ও আড়পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে কৃষকরা বোরো চাষ করছে। কৃষকরা জমি চাষ, সেচ, বোরো ধানের চারা উত্তোলন ও বপন কাজে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন।
চাওড়া কাউনিয়া গ্রামের রিপন ও আল আমিন বলেন, ধানের দাম ভালো তাই বোরো চাষ করছি।
পূর্ব চিলা গ্রামের কৃষক জলিল হাওলাদার, মজিবর, নাঈম ও রুবেল হাওলাদার বলেন, ধানের দাম ভালো থাকায় গত বছরের তুলনায় এ বছর কৃষকরা বেশী বোরো চাষ করছে।
আঠারোগাছিয়া ইউনিয়নের পশ্চিম সোনাখালী গ্রামের সোহেল রানা বলেন, এ বছর ধানের দাম ভালো। তাই কৃষক বোরো ধান চাষে ঝুকছে। গত বছর দুই এক একর জমিতে বোরো চাষ করেছিলাম এ বছরতিন একর জমিতে বোরো চাষ করেছি।
আড়পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নের ঘোপখালী গ্রামের আফজাল শরীফ বলেন, গত বছর এক একর জমিতে বোরো চাষ করেছিলাম কিন্তু দাম ভালো পাইনি। এ বছর ধানের দাম ভালো তাই ৬ একর জমিতে বোরো চাষ করেছি।
আমতলী উপজেলা কৃষি অফিসার সিএম রেজাউল করিম বলেন, গত বছরের তুলনায় এ বছর বোরো চাষে ঝুঁকছে কৃষকরা। গত বছর বোরো চাষের লক্ষমাত্রা ছিল ১০১০ হেক্টর। এ বছর গত বছরের তুলনায় ৫ গুন বেশী জমিতে কৃষকরা বোরো আবাদ করছে। তিনি আরও বলেন, এ বছর এক হাজার ৬’শ কৃষককে উচ্চ ফলনশীল বোরো ধানের বীজ সরকরাহ করেছি। সরকার দক্ষিনাঞ্চলে বোরো ধান চাষে অগ্রাধিকার দিয়েছে। ওই অগ্রাধিকার বাস্তবায়নে উপজেলা কৃষি বিভাগ নিরলসভাবে কাজ করছে।