যুক্তরাষ্ট্রে বিক্ষোভে রাবার বুলেটে চোখ হারালেন সাংবাদিক

প্রকাশিত: ১২:১৭ অপরাহ্ণ , জুন ২, ২০২০

কৃষ্ণাঙ্গ যুবক জর্জ ফ্লয়েড হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভের ছবি তুলতে গিয়ে পুলিশের ছোড়া রাবার বুলেটে চোখ হারিয়েছেন এক ফটোসাংবাদিক। লিন্ডা টিরাদো নামে ওই নারী ফ্রিল্যান্স ফটোসাংবাদিক মিনেপোলিসে এই দুর্ঘটনার শিকার হন বলে জানিয়েছে বিবিসি ও বার্তা সংস্থা এএফপি।

তিরাদো জানান, শনিবার তিনি মিনেপোলিসের রাস্তায় বিক্ষোভের সংবাদ কাভার করতে গিয়েছিলেন। হঠাৎ পুলিশের দিক থেকে আসা একটি রাবার বুলেট তার বাঁ চোখে এসে লাগে। বিবিসি ওয়ার্ল্ড নিউজকে তিনি বলেন, বিক্ষোভকারীরা তাকে সহায়তায় এগিয়ে আসে এবং হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তার চোখে অস্ত্রোপচার করা হয়েছে।

দুই স্তানের জননী ৩৭ বছর বয়সী টিরাদো পরে টুইটারে জানিয়েছেন, রাবার বুলেটের আঘাতে বাঁ চোখের আলো তিনি স্থায়ীভাবে হারিয়ে ফেলেছেন। তার ভাষায়- “ওই মুহূর্তে মনে হয়েছিল আমার মুখ বিস্ফোরণে উড়ে গেছে।”

অস্ত্রোপচার করে তার চোখ থেকে গুলি বের করা হলেও চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, ওই চোখে তিনি আর দেখতে পাবেন না। তবে এক চোখের জ্যোতি হারালেও এটাকে ক্যারিয়ার শেষ বলতে নারাজ টিরাদো।

“এটা আমার ফটোগ্রাফি চোখ না। তাই ক্যারিয়ারও শেষ হচ্ছে না। আমি এখনো ফুল ও সূর্য ডোবা দেখতে পাই।”

শুধু টিরাদোই নয়, বিক্ষোভের সংবাদ কাভার করতে গিয়ে আরও অনেক সাংবাদিক আহত হয়েছেন। এর মধ্যে মিনেপোলিসে ওমর জিমেনেস নামে এক সাংবাদিককে গ্রেপ্তারের ঘণ্টাখানেক পর ছেড়ে দেওয়া হয়।

এ ছাড়া লুইসভিলে, ক্যান্টাকিসহ অনেক জায়গায় বিক্ষোভের সংবাদ কাভার করতে গিয়ে সাংবাকিদেরা হেনস্তার শিকার হয়েছেন। স্থানীয় টিভি ক্রুদের ওপর মরিচ-পানি ছিটাতেও দেখা গেছে। ক্যাটিন রাস্ট নামে এক রিপোর্টার বলেছেন, তার গায়ে গুলি লেগেছে।

কমিটি টু প্রটেক্ট জার্নালিস্ট বিবৃতিতে বলেছেন, “পুলিশ সাংবাদিকদের যাতে টার্গেট না করে এ ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রের সব শহরের কর্তৃপক্ষকে নির্দেশনা দেওয়া দরকার। নিশ্চয়তায় দেওয়া দরকার যে, কোনো ধরনের আঘাতপ্রাপ্ত না হওয়া ছাড়াই তারা নিরাপদে রিপোর্ট করতে পারবে।”