র‌্যাব-১৩’র অভিযানে ৫৬৪ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার জীপ গাড়ি জব্দ গ্রেফতার-২ আসামির মৃত্যুদন্ড চায় গণমাধ্যম ও মানবাধিকার কর্মী

প্রকাশিত: ১২:৩১ অপরাহ্ণ , অক্টোবর ২২, ২০২০

মাদকমুক্ত দেশ চাই এই শ্লোগানের ভিত্তিতে মাননীয় প্রধান মন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছেন মাদক কেনা বেচায় সর্বোচ্চ সাস্তি মৃত্যুদন্ত । কিন্তু তার পর ও থামছেনা মাদক বেচাকেনা ও চোরাচালান।

র‌্যাব-১৩ এর একটি বিশেষ আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত ১০ অক্টোবর ২০২০ ভোরে লালমনিরহাট জেলার কালীগঞ্জ থানাধীন লালমনিরহাট টু বুড়িমারী পাকা রাস্তা ভূল্যারহাট বাজারে রেল গেইট সংলগ্ন লিশন বাবু হোটেল এন্ড রেস্টুরেন্ট এর সামনে সন্দেহভাজন ০১টি জীপ তল্লাশী করে।

তল্লাশী চলাকালে জীপের পিছনে সীটের নীচে বিশেষ কায়দায় লুকানো অবস্থায় সর্বমোট ৫৬৪ বোতল ফেন্সিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী জামালপুর জেলার সদর থানাধীন মিয়া পাড়া সিংহজানি গ্রামের মৃত ফজলুর রহমানের ছেলে মোঃ সাখাওয়াত হোসেন সউদ (২২), এবং বগুড়া জেলার গাবতলী থানাধীন মালিয়ানডাঙ্গা গ্রামের মৃত আমজাদ হোসেন প্রামানিক এর ছেলে মোঃ আব্দুল হান্নান প্রামানিক (৩৬),কে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় মাদক পরিবহনের কাজে ব্যবহৃত জিপ গাড়িটি জব্দ করা হয়।

র‌্যাব-১৩ রংপুর এর মিডিয়া অফিসার সিনিয়র এএসপি সিদ্দিক আহমদ স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ধৃত আসামী দুজনই সংঘবদ্ধ মাদক চোরাকারবারী দলের সদস্য। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, উদ্ধারকৃত ফেন্সিডিল লালমনিরহাট থেকে ঢাকাতে সরবরাহ করার কথা ছিল।

এছাড়া জীপের মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন স্থানে মাদকের চালান পৌঁছে দেওয়া এবং দীর্ঘদিন যাবৎ মাদক ব্যবসার সাথে তাদের সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করে। তাদের সাথে জড়িত অন্যান্য মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে গোপন অনুসন্ধান চলছে। আটককৃত মাদক ব্যবসায়ী’দ্বয়ের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

বিষয়টি কালিগঞ্জ থানার ওসি গনমাধ্যমকে জানিয়েছেন এই আসামিদের যাতে সর্বোচ্চ সাস্তি হয় আমরা সেই পথেই আগাচ্ছি।
ইতিমধ্যে সৌদ নামক আসামী জেলা জজকোর্ট থেকেই জাবিন চাইলে তা বিজ্ঞ আদালত জামিন না মনজুর করেন। মামলার তদন্ত চলমান রয়েছে। তদন্ত সঠিকভাবে করার জন্য আসামিদের রিমান্ড এনে জিঙ্গাসাবাদ করা হবে।

আমার সন্ত্রাস ও মাদক মুক্ত দেশ চাই সেই অঙ্গীকার বদ্ধ হয়ে কাজ করে যাচ্ছি বলে জানিয়েছেন ওসি মহোদয়।