আজ বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস

প্রকাশিত: ৯:৫৩ পূর্বাহ্ণ , মে ৩১, ২০২০

আজ বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস। প্রতি বছর ৩১ মে সারা বিশ্বে এ দিবস পালিত হয়। বাংলাদেশেও দিবসটি পালন করা হয়। এবারের প্রতিপাদ্য হচ্ছে ‘তামাক কোম্পানির কূটচাল রুখে দাও, তামাক ও নিকোটিন থেকে তরুণদের বাঁচাও’।

২০১৭ সালের গ্লোবাল অ্যাডাল্ট টোব্যাকো জরিপ বলছে, দেশে ১৫ বছরের ঊর্ধ্বে জনগোষ্ঠীর ৩৫.৩ শতাংশ (প্রায় ৩ কোটি ৭৮ লাখ) মানুষ তামাক সেবন করে। তামাকজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে বছরে এক লাখ ৬১ হাজার মানুষ মারা যায় বলে জানায় দি টোব্যাকো অ্যাটলাস-২০১৮। তামাক খাত থেকে রাজস্ব আয়ের চেয়ে তামাকজনিত রোগব্যাধির চিকিৎসা ব্যয় অনেক বেশি।

গবেষণা অনুযায়ী, তামাকের কারণে প্রতি বছর বিশ্বে ৮০ লাখ মানুষ প্রাণ হারায়। যার মধ্যে শুধু বাংলাদেশেই এক লাখ ২৬ হাজার।

বছরের পর বছর ধরে তামাক এবং অন্যান্য নিকোটিন পণ্যে শিশু-কিশোর এবং তরুণদের আকৃষ্ট করতে অত্যন্ত কৌশলী প্রচারণা চালিয়ে আসছে তামাক কোম্পানিগুলো। তামাকের কারণে প্রতিবছর বিশ্বে ৮০ লাখ মানুষ প্রাণ হারায়, এরমধ্যে শুধু বাংলাদেশেই তামাক ব্যবহারজনিত রোগে বছরে ১ লক্ষ ২৬ হাজার মানুষ মারা যায়।

তামাকবিরোধী সংগঠনগুলোর দাবি, মানুষের জীবন বাঁচানোর পাশাপাশি জনস্বাস্থ্য সুরক্ষা ও ২০৪০ সালের মধ্যে তামাকমুক্ত বাংলাদেশ অর্জনের পথ সুগমে তামাকপণ্য নিয়ন্ত্রণ এবং তামাক কোম্পানির সকল কারসাজি বন্ধে সরকারকে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে তামাক কোম্পানির পৃষ্ঠপোষকতায় আয়োজিত যে কোন ধরনের  অনুষ্ঠান নিষিদ্ধ এবং তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন সংশোধন করে বিক্রয়স্থলে প্রোডাক্ট ডিসপ্লের মাধ্যমে তামাকপণ্যের প্রচার বন্ধ এবং পাবলিক প্লেস ও পরিবহনে ‘ধূমপানের জন্য নির্ধারিত স্থান’ বিলুপ্ত করতে হবে।