বিশ্বে করোনায় মৃত ছাড়ালো ১০ লাখ

প্রকাশিত: ৯:৫৫ পূর্বাহ্ণ , সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২০
করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত সন্তানের কবরের পাশে কাঁদছেন এক ইরানি মা- সংগৃহীত

সারাবিশ্বে সংক্রামক ব্যাধি করোনা ভাইরাসের প্রাদূর্ভাব আপন গতিতে বেড়েই চলছে। বাড়ছে মৃত্যু, বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। তুলনামূলকভাবে সুস্থ হওয়ার সংখ্যা নেহাত কম না হলেও আতঙ্ক ছাড়ছে না জনমনে। বিশ্বে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু সংখ্যা ১০ লাখ অতিক্রম করেছে। এ মৃত্যু তালিকায় যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, ব্রাজিল, মেক্সিকোর নাগরিকদের সংখ্যাটা বেশি। আর সুস্থতা লাভ করেছেন ২ কোটি ৪৬ লাখ ৩৪ হাজারের উপরে করোনা রোগী। 

জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডওমিটারের নিয়মিত পরিসংখ্যানে বাংলাদেশ সময় সোমবার সকাল ৯টায় বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে ২ লাখ ৫১ হাজার ৯১৫ জন নতুন করে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে পড়েছেন। এতে করে মোট সংক্রমিতের সংখ্যা ৩ কোটি ৩৩ লাখ ৪ হাজার ৬৬৬ জনে দাঁড়িয়েছে। অপরদিকে এখন পর্যন্ত প্রাণহানি ঘটেছে ১০ লাখ ২ হাজার ৩৮৯ জনের। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৩ হাজার ৮৭৩ জন। গত এক দিনে মোট সুস্থতা লাভ করেছেন ২ লাখ ২৭ হাজার ১৯৪ জন। এ নিয়ে সুস্থতার সংখ্যা ২ কোটি ৪৬ লাখ ৩৪ হাজার ২৯৮ জন।

গেল বছরের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে প্রথম মানবদেহে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়। এরপর দেশটিতে এ ভাইরাসে অস্বাভাবিকভাবে প্রাণহানি ঘটে। এরপর পরই চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে ইউরোপের দেশগুলোতে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ মাত্রা ছাড়ায়। সে সব দেশে করোনা ভাইরাস কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসলেও উত্তর ও দক্ষিণ আমেরিকার দেশগুলোতে এখনও ক্রমশ বেড়েই চলছে কোভিড-১৯ ভাইরাসে প্রাণহানি। ১১ মার্চ করোনাকে মহামারী ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। যেখানে এখন পর্যন্ত ৭৩ লাখ ২১ হাজার ৩৪৩ জন মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে মারা গেছেন ২ লাখ ৯ হাজার ৪৫৩ জন। সংক্রমণের নিরিখে দুই নম্বরে অবস্থান নেওয়া ভারতে গত এক দিনে ৮২ হাজারের উপরে করোনা রোগী পাওয়া গেছে। এতে করে আক্রান্তের সংখ্যা ৬০ লাখ ৭৩ হাজার ৩৪৮ জন। মারা গেছেন ৯৫ হাজার ৫৭৪ জন। মৃত্যুর তালিকায় ২ অবস্থানে থাকা ব্রাজিলে সংক্রমিতের সংখ্যা বেড়ে ৪৭ লাখ ৩২ হাজার ৩০৯ জনে দাঁড়িয়েছে। প্রাণহানি বেড়ে ১ লাখ ৪১ হাজার ৭৭৬ জনে ঠেকেছে। রাশিয়ায় সংক্রমিতের সংখ্যা ১১ লাখ ৫১ হাজার ৪৩৮ জন। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ২০ হাজার ৩২৪ জন মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

পেরুতে আক্রান্ত ৮ লাখ প্রায় ১৩ হাজার ৩০২ জন মানুষ। যেখানে মৃতের সংখ্যা ৩২ হাজার ২৬২ জনে দাঁড়িয়েছে। কলম্বিয়ায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ৮ লাখ ১৩ হাজার ৫৬ জনের শরীরে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২৫ হাজার ৪৮৮ জনের। মেক্সিকোয় আক্রান্ত ৭ লাখ ২৬ হাজার অতিক্রম করেছে। সেখানে প্রাণ গেছে ৭৬ হাজার ২৪৩ জন মানুষের। আর্জেন্টিনায় আক্রান্ত ৭ লাখ ১১ হাজার ৩২৫ জন। প্রাণ হারিয়েছেন ১৫ হাজার ৭৪৯ জন। চিলিতে ৪ লাখ সাড়ে ৫৭ হাজারের বেশি মানুষের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে ১২ হাজার ৬৪১ জনের মৃত্যু হয়েছে।

দক্ষিণ আফ্রিকায় সংক্রমিতের সংখ্যা ৬ লাখ ৭০ হাজার ৭৬৬ জন। মৃত্যু হয়েছে ১৬ হাজার ৩৯৮ জনের।

স্পেনে আক্রান্ত ৭ লাখ ৩৫ হাজার ছাড়িয়েছে। প্রাণ গেছে ৩১ হাজার ২৩২ জনের। ফ্রান্সে করোনার ভুক্তভোগী ৫ লাখ ৩৮ হাজার মানুষ। এর মধ্যে প্রাণহানি ঘটেছে ৩১ হাজার ৭২৭ জনের। যুক্তরাজ্যে সংক্রমিতের সংখ্যা ৪ লাখ ৩৪ হাজার ছাড়িয়েছে। যেখানে মৃত্যু হয়েছে ৪১ হাজার ৯৮৮ জন মানুষের। তুরস্কে আক্রান্ত ৩ লাখ ১৪ হাজার আর মৃত্যু হয়েছে ৭ হাজার ৯৯৭ জনের।

ইরানে করোনার শিকার প্রায় ৪ লাখ ৪৬ হাজারের বেশি মানুষ। প্রাণহানি ঘটেছে ২৫ হাজার ৫৮৯ জনের। সৌদি আরবে আক্রান্ত ৩ লাখ ৩৩ হাজারের বেশি, মারা গেছেন ৪ হাজার ৬৮৩ জন। পাকিস্তানে আক্রান্ত ৩ লাখ ১০ হাজার আর মৃত্যু হয়েছে ৬ হাজার ৪৫৭ জনের। ইরাকে আক্রান্ত ৩ লাখ ৪৯ হাজার আর মারা গেছেন ৮ হাজার ৯৯০ জন।

এদিকে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের দেয়া তথ্য মতে, গতকাল রোববার দুপুর পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ৫৯ হাজার ১৪৮ জন। এর মধ্যে প্রাণহানি ঘটেছে ৫ হাজার ১৬১ জনের।