রামগড়ে ফারুক হত্যার ২০ দিন পর হত্যাকারী গ্রেপ্তার।

বাহার উদ্দিন বাহার উদ্দিন

রামগড় প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১:৫৫ অপরাহ্ণ , আগস্ট ২, ২০২০

খাগড়াছড়ির রামগড়ের বহুল আলোচিত কালাডেবা এলাকার ফারুক হত্যাকাণ্ডের ২০ দিন পর আজ কালাডেবা এলাকা মুল ঘাতককে থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

আজ পহেলা আগস্ট শনিবার রামগড় পৌরসভার সাত নং ওয়ার্ডের কালাডেবা এলকা থেকে ফারুক হত্যার আসামি মৃদুলকান্তি ত্রিপুরা আকাশকে রামগড় থানা পুলিশ আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামি মৃদুল কান্তি ত্রিপুরা আকাশ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বিজ্ঞ ম্যাজিস্ট্রট মোরশেদুল আলমের আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

আসামি মৃদুল কান্তি ত্রিপুরা আকাশ কালাডেবা এলাকার উপেন্দ্র ত্রিপুরার ছেলে।

মৃদুল কান্তি ত্রিপুরা পুলিশকে জানায়, ঘটনার ২/৩ দিন আগে কালাডেবা বাজার সংলগ্ন এলাকায় বৈরাগী টিলার আলী নেওয়াজ এর ছেলে ফারুকের সাথে পায়ের সাথে পা লাগা নিয়ে তার বচসা হয়। ফারুক তাকে চড় থাপ্পড় মারে। এতে ক্ষেপে গিয়ে মৃদুল প্রতিশোধ নেয়ার অপেক্ষায় থাকে। ঘটনার দিন ফারুক কালাডেবা বাজার থেকে বাসায় ফেরার পথে রাত সাড়ে দশটার দিকে সুযোগ বুঝে ফারুকের মাথার পিছন দিকে চেলা কাঠ দিয়ে আঘাত করে।ফারুক জ্ঞান হারালে তার অ্যান্ড্রয়েড শাওমি মোবাইল ফোনটি নিয়ে পালিয়ে যায়।

পুলিশ জানিয়েছে এ ঘটনায় ফারুকের মাথা ফেটে যায় এবং ব্যাপক রক্তক্ষরণের ফলে চট্টগ্রাম মেডিকেলে মারা যায়।

রামগড় থানার অফিসার্স ইনচার্জ মোঃ সামসুজ্জামান বলেন তার নেতৃত্বে গত ২০ দিন পুলিশের অক্লান্ত পরিশ্রমে খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার আব্দুল আজিজ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান ,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রামগড় সার্কেল সৈয়দ মোহাম্মদ ফরহাদ এর তত্ত্বাবধানে পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মনির হোসেন এর সহায়তায় এসআই অজয় চক্রবর্তী আধুনিক তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে আজ কালাডেবা বাজার থেকে আসামি মৃদুল কান্তি ত্রিপুরা আকাশ কে আটক করতে সমর্থ হয়।

রামগড় থানার অফিসার ইনচার্জ আরো জানান আসামির বিরুদ্ধে রামগড় থানায় গত ১২/ ৭/২০২০, ৩০২/ ৩৪ প্যানেল কোড এ মামলা হয়েছে।
মামলাটি তদন্তাধীন আছে।