নবীন চৌধুরী

সেরা বিজ্ঞানী আলর্বাট আইনস্টাইন

             


বিজ্ঞানের এই চরম উৎকর্ষের যুগে বোমা, বিগব্যাং, কোয়ান্টাম বলবিদ্যা ও ইলেক্ট্রনিক্স- এর মত শতাব্দির শ্রেষ্ঠ আবিস্কারগুলো সযতেœ র্সবশ্রেষ্ঠ বিজ্ঞনী আলর্বাট আইনস্টাইনের নাম বহন করে আছে। এ থেকেই ধারণা করা যায় আইনস্টাইন সত্যিকার অর্থেই বিশ্বের সারা জাগানো অন্যতম শ্রেষ্ঠ বিজ্ঞানী। আইনস্টাইন ছিলেন মৌলিক মেধাাশক্তির র্মূত প্রতীক। তার জ্ঞান ও প্রজ্ঞা এতটাই প্রবল ও অতল স্পর্শী যে, তাকে প্রতিভাবানদের সেরা প্রতিভা বলে অভিহিত করা হয়ে থাকে। মহাবিশ্ব সর্ম্পকে তিনিই চিন্তা করেন ব্যাপকভাবে ও তিনিই আবিস্কার করলেন, আপাতদৃষ্টে মহাবিশ্বকে যা মনে করা হয়ে থাকে সেটি আসলে সে রকম নয়। পরলোকগত রির্চাড ফাইনম্যান বলে গেছেন, আইনস্টাইনের আবিস্কৃত সাধারণ আপেক্ষিক মতবাদ নিয়ে বিজ্ঞানীদের বিস্ময়ের শেষ নেই।  তবে এই মহান পর্দাথবিদের জীবনাচার ছিল অত্যন্ত সাদামাটা। এই বিখ্যাত বিজ্ঞানীপ্রতিভাও ছিল বহুমুখী। বিজ্ঞানকে ছাড়িয়ে কবিতা থেকে চিত্রকলা পর্যন্ত আধুনিক সংস্কৃতির বিভিন্ন শাখায় তার বিচরণ ছিল রীতিমত বিস্ময়কর। মানুষের কল্পনা শক্তির ওপর আইনস্টাইনের ব্যাপক প্রভাব তার জীবদ্দশায় এমনকি তার মৃত্যু পরও সমানভাবে বিদ্যমান রয়েছে। ভীতিকর তার কবরটি পর্যন্ত কৌতুহলপ্রিয় মানুষের কাছে চুম্বক শক্তির মত পরিগণিত হয়েছে। আইনস্টাইনের দেহভস্ম গোপনে ছড়িয়ে ছিটিয়ে ফেলা হলেও তরি মস্তিষ্ককে বিলীন করা যায়নি। প্যাথলজিসরা তার প্রতিভার গোপন রহস্য জানার জন্য পরীক্ষা চালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছেন। কানাডীয় গবেষকরা পরীক্ষা করে দেখতে পেয়েছেন তার মস্তিেেস্কর অংশ ছিল অস্বাভাবিক রকমের বড়। আইনস্টাইনের পুরানো চিঠিপত্রও অন্যান্য কাগজপত্র থেকেও তার আরও বিবরণ প্রকাশিত হলেছে। ফলে অনেক বছর ধরে বিশ্বের শ্রেষ্ঠ এই বিজ্ঞানীর ভাবমূর্তি আরো উজ্জ্বল হওয়ার পথে তার শক্রুরা যে অন্তরায় সৃষ্টি করেছিল শেষ পর্যন্ত তা অপসৃত হয়েছে। জার্মানের দক্ষিণাঞ্চলের এক মধ্যবিত্ত ইহুদি পরিবারের প্রথম সন্তান আইনস্টাইনের বাল্যকালে সঙ্গীতানুরাগী মায়ের দ্বারা সবচেয়ে বেশী প্রভাবিত হন। এই মা তাকে বেহালা থেকে শুরু করে নানা ধরনের ধ্রুপদী বাদ্যযন্ত্র বাজাতে উৎসাহিত করেন। বয়ো বৃদ্ধির আগেই তিনি র্ধম সর্ম্পকে জ্ঞান লাভ করেন। অল্প কিছু দিনেই মধ্যেই র্ধম চিন্তা তার মধ্যে থেকে তিরোহিত হয়। তিনি বিজ্ঞান ও জিওমেট্রির ওপর পড়াশোনা শুরু করেন। মোটকথা প্রকৌশলী ও র্ব্যথ শিল্পপতি পিতার প্রভাব তার ওপর ছিলনা বললেই চলে। তবে পিতা তাকে একটি চমৎকার খেলনা কম্পাস দিয়েছিলেন। এটিই তাকে প্রথম পরীক্ষা- নিরীক্ষার চিন্তায় উদ্বুদ্ধ করে।  যন্ত্রের কাটাঁটি সর্বক্ষণ উত্তর দিকে নির্দেশ করে। এই বিষয়টি ৫ বছরের আইনস্টাইনকে চমৎকৃত করে। ১৫ বছর বয়সে আইনস্টাইন প্রথম বিদ্রোহীর ভূমিকায় অবর্তিন হন। তার পরিবার মিউনিখ থেকে ইতালীর উত্তরাঞ্চলেএসে বসবাস শুরু করলে পড়াশুনার কারনে তাকে মিউনিখে থেকে যেতে হয়।  কিন্তু কড়াকড়ির কারণে সেখানকার প্রিপারেটরিও স্কুল ত্যাগ করেন। এমনকি র্জামানির নাগরিকত্ব ত্যাগ করেন এবং শেষ পর্যন্ত সুইজারল্যান্ডের ইরিঘের একটি পলিটেকনিক স্কুলে ভর্তি হন। সেখানের তিনি এক সহপাঠিনীর প্রেমে পড়েন। তার প্রেমিকা ছিল আবীয় নাগরিক, নাম মিলেভা মারিক। পর্দাথ বিজ্ঞানের এই ছাত্রীটি তার চেয়ে তিন বছরের বড় ছিল। তবে তার সঙ্গে সুনিবিড় আতিœক সর্ম্পক গড়ে ওঠেনি। তিনি তার সঙ্গে পর্দাথ বিজ্ঞান ও সঙ্গীতে বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করতেন। আইনস্টাইন আদর করে ডাকতেন ডলি। তার গর্ভে এক কন্যা সন্তানও লাভ করে। শেষ পর্যন্ত অসুস্থ এই কন্যা সন্তানটি শিশুকালেই মারা যায়। কারো কারো মতে, তাকে দত্তকে প্রদান করা হয়। 
মায়ের নিষেধ সত্ত্বেও আইনস্টাইন তাকে বিয়ে করেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা টিকেনি। স্বামীর র্কমব্যস্ততা ও প্রথম সন্তান হারানো কষ্টে মিলেভা ক্রমশ নিজেকে অসুখী ভাবতে থাকেন। প্রথম বিশ্বযুদ্ধের শুরুতে তিনি অসন্তুষ্টচিত্তে আইনস্টাইন এর সাথে বার্লিন যান। সে সময়ে বার্লিন  ছিল ইউরোপীয় পর্দাথ র্চচার লীলাভূমি। পরিস্থিতি অসহনীয় মনে করে তিনি দুই পত্র নিয়ে আবার জুরিয়ে চলে আসেন। প্রায় তিন বছর পর ১৯১৯ সালে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে। আইনস্টাইন নোবেল পুরষ্কার পাবেন এ ব্যাপারে নিশ্চিত ধারণা নিয়ে তালাকপ্রাপ্তা স্ত্রীকে সেখার থেকে র্অথ দেবেন বলে কথা দেন।  এরপর তাদের ,মধ্যে যোগাযোগ নিছকই তাদের পুত্রদ্বয়ের কারণে অব্যাহত ছিল। জ্যোষ্টপুত্র হামস আলর্বাট ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের হাইজেলিক্সের অধ্যাপক হন। কনিষ্ঠপুত্র এন্ডুর্য়াড সাহিত্য ও সঙ্গীতে অনুরক্ত হন। তিনি সুইজারল্যান্ডের একটি মানসিক হাসপাতালে মারা যান। এলিসা এমন একটি সময় আইনস্টাইনের সঙ্গ দিতে থাকেন, যখন তিনি তার আপেক্ষিক মতবাদ দিয়ে বুদ্ধিজীবি মহলে বক্তৃতা দিয়ে চলছেন, আইনস্টাইনের খ্যাতি চারদিকে ছড়িয়ে পড়লে মহিলারা তার চারদিকে ভিড় করতে থাকে। এই অবস্থা ঘটনাক্রমে পতœীকে বরণকারী এলিসার মধ্যে প্রতিহিংসার উদ্রেগ করে। অবশেষে আইনস্টাইনকে বিয়ে করেন। 

                                                     

14.09.2018 | 03:39 PM | সর্বমোট ৯৩ বার পঠিত

সেরা বিজ্ঞানী আলর্বাট আইনস্টাইন" data-width="100%" data-numposts="5" data-colorscheme="light">

জাতীয়

গুজব শনাক্ত সেলের কার্যক্রম শুরু হবে আগামী মাসে

তথ্য প্রতিমন্ত্রী বেগম তারানা হালিম বলেছেন, চলতি মাসেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে গুজব শনাক্ত করতে সরকারের তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে একটি...... বিস্তারিত

20.09.2018 | 09:20 PM


রাজধানী

প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হলে আলেম-উলামারা রুখে দেবে: মুফতি ফয়জুল্লাহ

বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশ বেফাকের সহ-সভাপতি মুফতী ফয়জুল্লাহ বলেছেন, ‘কওমী মাদরাসার সনদ দেয়ায় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার সরকারে...... বিস্তারিত

21.09.2018 | 08:52 AM

চট্টগ্রাম

ফেইসবুকে নিউজ ৭১ অনলাইন

ধর্ম

শরীর রক্তাক্ত করে শোক পালন হারাম

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা হযরত আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ীর ফতোয়া অনুযায়ী মহররম ও আশুরার শোক পালনের ক্ষেত্রে শরীর রক্তাক্ত করা হারাম। এমনকি...... বিস্তারিত

18.09.2018 | 01:47 PM

বিনোদন

ওবায়দুল কাদেরের গল্পের নায়িকা কে?

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের লেখা উপন্যাস নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণ করা হচ্ছে। উপন্যাসটির নাম ‘গাঙচিল’।উপন্যাসের...... বিস্তারিত

19.09.2018 | 04:36 PM

সর্বশেষ সংবাদ

সব পোস্ট

English News

সম্পাদকীয়

বিশেষ প্রতিবেদন

মানুষ মানুষের জন্য

আমরা শোকাহত

অতিথি কলাম

সাক্ষাৎকার

অন্যরকম

ভিডিওতে ৭১এর মুক্তিযোদ্ধের ইতিহাস

ভিডিও সংবাদ