শফিক নহোর

কবি পাপিয়া মেঘলার এক গুচ্ছ কবিতা


 

   মনে রেখো

 কবি পাপিয়া মেঘলা

 

আমাকে খুব মনে রেখো

পুরনো চিঠির ভাঁজে প্রতিটি চরণে ভুল বানানে

সাদা কাগজে কালির রেখায় দেয়া-লিকার শব্দের ভেতর

আমি চাই, আমাকে খুব করে খুঁজে নিও।

বয়ঃসন্ধিকালে কিশোরীর লাজুক আঁখির নীড়ে

বেখেয়ালি চঞ্চল মনের ভাবনার আঙিনা ঘিরে

খুব যতনে সাজিয়ে রেখো তোমার স্বপ্নগুলো

আমি এসে ছুঁয়ে দেবো আলতো করে বৃষ্টি হয়ে।

ফজরের আজান হলে ঘুমন্ত ভোরে জায়নামাজে বসে

যখন দু'হাত উঠাসে রহমানুর রাহীমের আরশ মঞ্জিলে

সমস্ত চাওয়ার ফাঁকে তখন মনে করো আমায়

বিধাতার কাছে জানিও ফরিয়াদ, এতটুকুই চাওয়া।

প্রাতঃভ্রমণ শেষে কফির মগে ঠোঁট ছোঁয়ানোর আগে

মনে করে দেখে নিও চিনি কম দুধ বেশি, ঠিক আছে তো!

অতঃপর প্রশান্তিময় প্রতিটি চুমুকে খুঁজে নিও আমার স্পর্শ।

 

 

আরেকটি যুদ্ধের প্রত্যাশা

কবি পাপিয়া মেঘলা

 

আবার শুরু হোক যুদ্ধ, বেঁচে থাকার যুদ্ধ

অনিরাপদ সড়ক, ধর্ষণ, মুখোশ ধারী শয়তানের

বিরুদ্ধে আবার শুরু হোক নতুন একটি যুদ্ধ।

"ভেঙ্গে দাও কালো হাত, গুড়িয়ে দাও অনিয়ম"

শ্লোগানে শ্লোগানে মুখরিত হোক অস্থির রাজপথ

অধঃপতনের সীমানা ভেদ করে হোক আরেকটি জিহাদ।

হে তরুণ সমাজ, হে আমজনতা জেগে ওঠো

জেগে ওঠো এবার কলুষিত খোলস ভেদ করে

অন্ধকার রজনী ফুঁড়ে ছিনিয়ে আনো আলোকিত ভোর।

পরাধীনতা নয়, চাই স্বাধীনতা, চাই সুস্থ সমাজ

রক্তঝরা লাশের দুর্গন্ধে নয়, শ্বাস নিবো সবুজে

নতুন প্রজন্মের জন্য চাই একটি নিরাপদ দেশ।

হে নবীন, হে প্রবীণ আজ আর নয় ভেদাভেদ

মুঠো ছেড়ে হাতে হাত ধরে ঐক্যবদ্ধ হও

তোমাদের হাতেই রচিত হবে স্বপ্নময়ী বাংলাদেশ।

 

 

অশ্রু বিহীন যন্ত্রণা

কবি পাপিয়া মেঘলা

 

 

এভাবেই আসে একেকটি নির্ঘুম আধপোড়া রাত

ঈশানকোণে জমাট মেঘ, মন ভালো নেই বটবৃক্ষের।

সামনের ওই ধবধবে সাদা দেয়ালে দৃষ্টি রাখি রাখি

যেন তন্দ্রাচ্ছন্ন হয়েও মনে হয় খুব কাছেই আছো।

আমাকে গ্রহণ করো হে আঁধারে জ্যোৎস্না-ধারী আকাশ,

নির্ঘুম প্রহরের আলোকিত তারা আমাকে শুদ্ধ করো।

হে বেগবান, বলবান, স্রোতোবহা নদীর ঢেউ

আমাকে ধুয়ে মোচন করো এ হৃদয়ের যতো অভিশাপ।

সকালের শিশির, প্রস্ফুটিত সাদা গোলাপ আমি তোমার

কাছে ভিক্ষে চাই একমুঠো সজীবতা, শিশিরস্নাত দূর্বা।

নির্ঘুম কামিনী আমাকে এতটুকু দাও শুভ্রতা বুকের কালিমা

দূর হয়ে যাক, ফিরে পাক সুবাস এটুকুই প্রার্থনা।

এখানে উপহাসের কিছু নেই, কষ্টই আমার সারথি

সান্ধ্য বাগানে পাতাদের মর্মর ধ্বনি শোনা যায়

কে যায়? কে যায় এই বিবাগী নির্জন বনের পথ ধরে?

আমি তাকে চিনি নাকি সে আমাকে চিনে!

ঘুম নেই চোখে একরাশ শূন্যতা, দীর্ঘশ্বাস বুকের

দরজায় কড়া নাড়ে। বোঝেনি, কেউ জানেনি

কি করুণ শৈল্পিক কষ্ট আঘাত করে হৃদ মৃত্তিকায়!

যন্ত্রণায় ছটফট করেছি বহুরাত তবুও অশ্রু ঝরাইনি।

 

 

12.10.2018 | 10:23 AM | সর্বমোট ৪৬ বার পঠিত

কবি পাপিয়া মেঘলার এক গুচ্ছ কবিতা" data-width="100%" data-numposts="5" data-colorscheme="light">

জাতীয়

বিদেশে চাকরি প্রার্থীদের জন্য প্রশিক্ষণ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ

বিদেশে চাকরি প্রার্থীদের জন্য প্রশিক্ষণ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ বিদেশ চাকরি প্রার্থীদের দেশের বাইরে যাওয়ার আগে...... বিস্তারিত

18.10.2018 | 08:18 PM


রাজধানী

উত্তরখানে বাসায় আগুন : মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫

রাজধানীর উত্তরখানের ব্যাপারীপাড়ার একটি বাসায় গ্যাস লাইনের লিকেজ থেকে সৃষ্ট আগুনে দগ্ধদের মধ্যে আরো একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে একই...... বিস্তারিত

17.10.2018 | 12:26 PM

চট্টগ্রাম

ফেইসবুকে নিউজ ৭১ অনলাইন

ধর্ম

দণ্ড ও ক্ষমার অনুপম দৃষ্টান্ত

অনলাইন ডেস্ক:নবীজী দণ্ড দিয়েছেন, আবার ক্ষমার অনুপম দৃষ্টান্তও রচনা করেছেন। সামান্য রক্তপাতও এড়িয়ে গেছেন, আবার সাহাবীদের যুদ্ধের জন্য অনুপ্রেরণাও যুগিয়েছেন।শত্রুর...... বিস্তারিত

12.10.2018 | 04:46 AM

বিনোদন

আইয়ুব বাচ্চুর মৃত্যুতে যা বললেন ভারতীয় শিল্পীরা

বাংলাদেশের সঙ্গিতাঙ্গনের কিংবদন্তি আইয়ুব বাচ্চুর মৃত্যুতে শোকের ছায়া বিরাজ করছে ভারতের শিল্পাঙ্গনে। বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে মারা যান তিনি।এদিকে...... বিস্তারিত

18.10.2018 | 08:22 PM

সর্বশেষ সংবাদ

সব পোস্ট

English News

সম্পাদকীয়

বিশেষ প্রতিবেদন

মানুষ মানুষের জন্য

আমরা শোকাহত

অতিথি কলাম

সাক্ষাৎকার

অন্যরকম

ভিডিওতে ৭১এর মুক্তিযোদ্ধের ইতিহাস

ভিডিও সংবাদ