নিউজ রুম এডিটর, নিউজ৭১অনলাইন

রজকের প্রত্যাশা পূরণের কি কেউ নেই?


দৃষ্ঠিশক্তি এখনো তীক্ষ্ণ, শ্রবণশক্তিও ভালো তার। ফকির রজক ছুটে চলেছে সকাল-দুপুর, দুই পায়ে প্যাডেল ঘুরিয়ে। মুখে নেই কোনো বিরক্তির ছাপ, কেবলই সরলতার হাসি। যেন এই ৯০ বছরের জীবনটা অনায়াসেই কেটে গেছে।

জীবন নিয়ে তার কোনো আক্ষেপই নেই। কিন্তু শুধু কাছের মানুষগুলোই জানেন, সেই হাসির আড়ালে লুকিয়ে আছে দুঃখ-কষ্টের কত শত কাহিনী। যা শুরু হয়েছে এই পৃথিবীর আলো দেখার সঙ্গে সাথেই। জন্মের পর মাত্র ১২ দিনের নবজাতক রজক হারিয়েছিলেন মায়ের আঁচলের ছাঁয়া। সেই শোকে তার বাবাও ছয় মাস পর চলে যান না ফেরার দেশে। মা বাবার কোনো স্মৃতিই নেই। বাবা-মায়ের স্নেহ মমতার স্পর্শ কি? তা সে জানেও না। নানা-নানি বুকে তুলে নেন তাকে পরম মমতায়। কিন্তু বুদ্ধি হওয়ার আগেই নাকি, তারাও চলে গেছে। জানেই না সে এসবের কিছু। সবই আশপাশের মানুষের কাছে শুনেছেন তিনি।

এরপর সেই শিশু বয়স থেকেই কয়লা বহন করে, ধোপার কাজ করে নিজের মুখের খাবার নিজেই জোগাড় করতো রজক। ১২ বছর বয়স থেকে সে রিকশা চালায়। রাতে শরীরের ব্যথ্যায় জ্বর চলে আসতো। কাতরাতো সারারাত। কেউ দেখার ছিল না। নিজের চোখের জল নিজেই দু’হাতে মুছে আবার সকালে বেরিয়ে পরতো ক্ষুধার তাড়নায়। ক্ষুধার কষ্টে কতদিন কেটেছে পেটে গামছা বেঁধে, তার কোন হিসাব নেই।

একাকিত্বের জীবনের থেকে বেরিয়ে সংসার জীবনের স্বপ্ন বাঁধেন ২০ বছর বয়সে। তার স্ত্রী আরতিকে বরণ করারও কেউ ছিল না। সুখ-দুঃখ ভাগাভাগি করে ভালোই চলছিল তাদের সংসার। একে একে ঘর আলো করে তাদের সংসারের আগমন ঘটলো নতুন সদস্য। আট সন্তানের মধ্যে সাতটি মেয়ে, একটি ছেলে। বড় মেয়ে লক্ষী, তারপর বাসন্তি, শান্তি, মুক্তি, পঞ্চমী এরপর সরস্বতী এবং ছোট মেয়ে জবা। ছেলের নাম রেখেছিল দিলিপ রজক। আটটি সন্তানের মুখের খাবার জোগাড় করতে আরো বেশি পরিশ্রম করতে হয়েছে রজকের। রোদ বৃষ্টি উপেক্ষা করে ঘুরিয়েই চলেছেন রিকশার চাকা। শুধু দু’চোখে জ্বলজ্বল করছে তার আটটি ফুলের হাসি। মেয়েদের বেশিদূর পড়াতে পারেন নি আর্থিক অভাবের কারণে। কিন্তু একমাত্র ছেলের উজ্জ্বল ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে রজক দিনরাত এক করে রিকশা চালিয়েছেন।

এসবের মধ্যেই দেশে স্বাধীনতা যুদ্ধ শুরু হলে পরিবার নিয়ে ভারতে গিয়ে আশ্রয় নিতে হয়েছিল। একে একে মেয়েদের বিয়ে দিয়েছেন। ছেলেও বড় হয়েছে। উচ্চশিক্ষা গ্রহণ শেষে যখন রজক ভাবলো ‘দুঃখের দিন এবার বুঝি শেষ হল।’ কিন্ত ছেলে ধর্মান্তরিত হয়ে বিয়ে করে বাবা-মাকে ছেড়ে চলে গেল। ছেলের এই অবাধ্যতা সহ্য করতে না পেরে হঠাৎ একদিন তার স্ত্রী আরতিও মারা গেলেন। বৃদ্ধ বয়সে রজককে আবারও সেই একাকিত্বের জীবনে ফিরতে বাধ্য করলো তার নিয়তি। ছোট মেয়ে জবা পাশেই থাকে। তাদেরও অভাবের সংসার। ছোট জামাইও রিকশাচালক। এ যুগে তাদের সংসারে দুই সন্তানের পড়াশোনাসহ চারজনের অন্ন জোগাড় করতেই হিমশিম। সেখানে বাবার জন্য আর আর্থিক সহযোগিতার জায়গা কোথায়? তার ঘরের পাশে দুটো ঘর করে ভাড়া দিয়েছিল। সেই ঘর ভাড়াও তার ছেলে মাস শেষে এসে জোর করে তুলে নিয়ে যায়।

তাই এখনও ৯০ বছর বয়সে ঘুরিয়েই চলেছেন রিকশার প্যাডেল। তার প্যাডেল রিকশা এখন বড় রাস্তায় চলাচলে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তাই অলিতে গলিতে দু-একটি ভাড়া মারতে পারে, তাও সময় বেশি লাগে বলে যাত্রীও কেউ আর এই রিকশায় উঠতে চায় না।



সারা জীবনে শুধু সে সন্তানদের জন্যই ভেবেছে। নিজের জন্য একটা কানাকড়িও সঞ্চয় করতে পারেননি। তাই অটোরিকশা কেনার সামর্থ নেই। রিকশার গ্যারেজ থেকে ভাড়া নিয়ে চালাতে বের হয় মাঝে মাঝে। কিন্তু সেখানেও রিকশার জমা খরচ দিতেই তার বাকির খাতায় নাম লেখাতে হয়। বয়সের কারণে আজকাল প্রায়ই অসুস্থ হয়ে পড়েন। সামান্য কিছু টাকা পায় বয়স্ক ভাতা হিসেবে। যা দিয়ে তার চিকিৎসা খরচই হয় না।

কী করবে এখন রজক? তার নিরাপদে থাকার জায়গা বা সেবা পাবে কোথায়? কে দেবে এসব তাকে? 
এসব বিষয়ে রজক বলেন, সরকার বা সমাজের কোনো সহৃদয় ব্যক্তি যদি তাকে একটা অটোরিকশা কিনে দেয় এবং নিরাপদে থাকার কোনো ব্যবস্থা করেন, তাহলে তার জীবনের কাছে আর কোনো প্রত্যাশা নেই।

04.04.2019 | 09:02 PM | সর্বমোট ১২১ বার পঠিত

রজকের প্রত্যাশা পূরণের কি কেউ নেই?" data-width="100%" data-numposts="5" data-colorscheme="light">

জাতীয়

শ্রীলঙ্কায় হতাহতের ঘটনায় রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শোক

শ্রীলঙ্কায় সিরিজ বোমা হামলায় হতাহতের ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তারা...... বিস্তারিত

21.04.2019 | 05:48 PM


রাজধানী

ঢাকা মহানগর দক্ষিন যুবলীগের উদ্যেগে যুব সমাবেশ

ঢাকা মহানগর দক্ষিন যুবলীগের উদ্যেগে রাজধানী ঢাকার ওয়ারী থানার, " ফকির চান কমিউনিটি সেন্টারে " আজ বিকাল ৪ টায় যুব সমাবেশের ...... বিস্তারিত

21.04.2019 | 08:33 PM

চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামে গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যা

চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার হারুয়ালছড়ি গ্রামে বাসায় ঢুকে মামনি ধর নামের এক গৃহবধূকে গতকাল শনিবার গভীর রাতে গলা কেটে হত্যা করেছে...... বিস্তারিত

15.04.2019 | 12:05 AM

ফেইসবুকে নিউজ ৭১ অনলাইন

ধর্ম

হাসিমুখে কথা বলাও ইবাদত

মানুষের আচরণে তাঁর ব্যক্তিত্বের ছাপ ফুটে ওঠে। স্পষ্ট হয় তাঁর শিক্ষা ও শিষ্টাচার, রুচি ও ব্যক্তিত্ববোধ, মন ও মানসিকতা। তাই...... বিস্তারিত

11.04.2019 | 07:21 PM

বিনোদন

সুবীর নন্দীর অবস্থার উন্নতি, নেওয়া হবে বিদেশে

সুবীর নন্দীর অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়েছে বলে পারিবারিক সূত্রে জানাগেছে। তবে হৃদযন্ত্রের অবস্থা ভালো নয়, অস্ত্রোপচারের জন্য বিদেশে নেওয়ার পরামর্শ...... বিস্তারিত

18.04.2019 | 08:00 PM

সর্বশেষ সংবাদ

সব পোস্ট

English News

সম্পাদকীয়

বিশেষ প্রতিবেদন

মানুষ মানুষের জন্য

আমরা শোকাহত

অতিথি কলাম

সাক্ষাৎকার

অন্যরকম

ভিডিওতে ৭১এর মুক্তিযোদ্ধের ইতিহাস

ভিডিও সংবাদ