নবীন চৌধুরী

এশিয়া উপমহাদেশের ধামরাইয়ের যশোমাধবের রথযাএার কথা

           

                       
হিন্দু সম্প্রদয়ের আনন্দ ও ধর্মীয় উৎসবের মধ্যে একটি হল রথযাএা উৎসব।রথ যাএার প্রসঙ্গ উঠলেই ধামরাই রথযাএার কথাআসবেই।এশিয়া উপমহাদেশের মধ্যে ধামরাই রথযাএা দ্বিতীয়।আর বাংলাদেশে এত বড় রথযাএা ও মেলা দেশের অন্যকোন স্থানে পালন করা হয় না। 
 ধামরাই রথযাএা ইতিহাস বেশপ্রাচীন।জানা যায় ১০৭৯ বঙ্গাব্দ থেকে সুর্দীঘ ৩শ’৫০ বছর ধরে ধামরাই রথযাএা ও রথমেলার উৎসব পালিত হয়ে আসছে।কিভাবেএই মনোরম রথটি কাঠের রথে পরিণত হয় তা সঠিকভাবে জানা যায়নি। ১২০৪ বঙ্গাব্দথেকে ১৩৪৪ বঙ্গাব্দ পর্যন্ত মানিকগঞ্জ জেলার সাটুরীয়া থানার বালিয়াটির জমিদাররা বংশান্ক্রুমে এখানে পরপর চারটি রথ তৈরী করেন।১৩৪৪ বঙ্গাব্দে রথের ঠিকাদার ছিলেন নারায়নগঞ্জনের স্বর্গীয় সূর্য নারায়ন সাহা। এরথ তৈরী করতে সময় লাগে এক বছর।ধামরাই,কালিয়াকৈর,সাটুরিয়া ও সিঙ্গাইর থানার বিভিন্ন কাঠ শিল্পীরা যৌথভাবে নির্মাণ কাজে অংশ নিয়ে ষাট ফুট উচ্চতাসম্পন্ন রথটি তৈরী করেন।এই রথটি তিনতলা বিশিষ্ঠ ছিল।
 রথযাএা দেবতা জগন্নাথ দেবের সম্মানে অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে এবং একই তিথিতে হয় রথ টানা।আগেধামরাইয়ে কাঠের সেই রথটি টানার জন্য প্রায় ২৭ মণ পাঠের কাছি দরকার হতো।রথটির ৩২টি কাঠের চাকার ওপর স্থাপিত ৯ কক্ষ ।  রথটি ছিল চমৎকার দর্শনীয় ও কারুকার্যমন্ডিত। উৎকৃষ্টমানের কাঠ দিয়ে তৈরি রথগাত্রে খোদাই করা ছিল নানা পৌরানিক কাহিনীর সাথে সংশ্লিষ্ট চিত্রাবলী এবং তার সাথে যুক্ত হয়েছিল তৎকালিন ভারতবর্ষের স্বদেশী আন্দোলনের সাথে জড়িত বরেণ্য নেতৃবৃন্দের প্রতিকৃতি। এছাড়া ছিল কিছু মৈথুন চিত্র এবং রথের সন্মুখেভাগে তৈরি করা করা হয়েছিল দু’টি ধাবমান ঘোড়ার কাঠনির্মিত একটি নিখুঁত শিল্পকর্ম। আমাদের বাংলাদেশের পল্লী কবি জসীম উদ্দিন ধামরাই রথকে স্মরণ করে একটি দীর্ঘ কবিতা লিখেছিলেন ‘ধামরাই রথ’ যদিও বড় রথটি এখন আর নেই।কিন্তু এখন ছোট আকারের রথ তৈরী করা হয়েছে।সেই ঐতিহ্যমন্ডিত বৃহত্তম রথটি ১৯৭১ সালে পাকিস্তানের বর্বর হানাদার বাহিনী পুড়িয়ে দেয়।এরপর মির্জাপুরের দানবীর রনদা প্রসাদ সাহার সহযোগীতায় ছোট রথ তৈরী করে আবার শুরু হয় ধামরাইয়ের ঐতিহ্যবাহী যশোমাধবের রথযাএা। পুরীর জগন্নাথ দেবের মন্দির থেকে এই রথযাত্রার প্রচলন ঘটে। পুরীতে রয়েছে জগন্নাথ, বলরাম ও শুভ্রদার দারুমুর্তি। কিন্তু ধর্মমতে, জগন্নাথ বিশ্ব প্রতিপালক বিষ্ণুর অবতার হলধারী বলরাম,তার জৈষ্ঠ্যভ্রাতা ও সুভ্রদার তাদের ভগ্নি।রথটানা হয় এই এিমূর্তিকে নিয়ে।রথযাএা হিন্দু সম্প্রদয়ের ধর্মীয় অনুষ্ঠান হিসাবে এশিয়াতে পূর্ণতা না পেলেও ভারতের পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোতে এর প্রচলন রয়েছে। বাংলাদেশেও রথযাএা হিন্দু সম্প্রদয়ের একটি অন্যতম ধর্মোউৎসব। এ উৎসব অনুষ্ঠিত হয় চন্দ্র আষাঢ়ের শুক্লা পক্ষের দ্বিতীয় তিথিতে।
ঘটনা সুএে জানা যায়,যশোপাল রাজা একদা হাতির পিঠে চড়ে বেরাতে যার ধামরাই এলাকার পাশের অন্য একটি গ্রামে।রাস্তায় চলতে চলতে হাতিটি একটি ঢিবির সামনে গিয়ে থেমে যায়।আর চলতে চায়না।রাজা শত চেষ্টা করেও হাতিটিকে সামলে নিতে পারলেন না।এতে রাজা অবাক হলেন।তখন থেকে তিনি হাতি থেকে নেমে স্থানীয় ঐ মাটির ঢিবি খনন করার নির্দেশ দেন।যথা সময়ে খনন কাজ শুরু হলে সেখানে একটি মন্দির পাওয়া যায়।এর মধ্যে শ্রী বিষ্ণুর মূর্তির মত শ্রীমাধব মূর্তি ছিল।রাজা ভক্ত করে সেগুলোকে সঙ্গে নিয়ে আসেন।ধামরাই সদরে ঠাকুর বাড়ি পঞ্চাশ গ্রামের একনিষ্ঠ পন্ডিত  শ্রীরাম জীবন রায়কে তিনি এই মাধব মূর্তি প্রতিষ্ঠার দায়িত্ব দেন।তখন থেকে শ্রীমাধবের নামের সঙ্গে রাজা যশোপালের নামটি বিগ্রহের নতুন নামকরণ হল শ্রী শ্রী যশোমাধব।সেই থেকে পূজার বন্দোবস্ত হল।আজও ধামরাইয়ে শ্রী মাধব আদলে পূজা অর্চনা চলে আসছে।পরবর্তীতে শ্রী মাধবকে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠেছে ধামরাইয়ে শ্রী শ্রী মাধবের রথযাএা ও মেলা।প্রতি বছর ধামরাইয়ের রথযাএায় হাজার হাজার ভক্ত দর্শক উপস্থিত হয়ে ধর্মীয় অনুষ্ঠান সম্পন্ন করে থাকেন। ধারণা করা হয়,ধামরাই রথযাএা এশিয়ায় বিখ্যাত।১৯৭১ সালের আগে রথ যাএায় লাখ লাখ মানুষের সমাগম ঘটত ঐতিহ্যবাহী বিশাল রথটি এবং ধর্মীয় ভাবমূর্তি ফুটিয়ে তোলার জন্য।আজ অবশ্য বিশাল রথটি নেই।পাক হানাদাররা পুড়িয়ে দিয়েছে।বিশাল রথটি পুড়িয়ে দেয়ার পর ছোট রথটি নির্মাণ করে কোনরকম ঐতিহ্য ও ধর্মীয় উৎসব পালন করা হয়।তবে পরে ভারত সরকারের সহযোগীতায় বেশ বড় করে একটি রথ তৈরী করে দিয়েছে। রথযাএার সঙ্গে  থাকে বিভিন্ন রকমেরআয়োজন।যেমনসার্কাস,ম্যাজিক,যাএা,পুতুল নাচ,মিষ্ঠির দোকান,ছোটদের খেলার সামগ্রী,কুটির শিল্প,কাঁসা,পিতল শিল্প,চুড়ি ইত্যাদির দোকান।এ মেলা দেখার জন্য দেশের বিভিন্ন স্থান এবং দেশের বাইরে থেকেও লোকের সমাগম ঘটে। সেই সাথে বিদেশী পর্যটকরা রথযাত্রা ও মেলা দেখার জন্য আসে।

12.07.2019 | 11:36 AM | সর্বমোট ৭২৯ বার পঠিত

এশিয়া উপমহাদেশের ধামরাইয়ের যশোমাধবের রথযাএার কথা" data-width="100%" data-numposts="5" data-colorscheme="light">

জাতীয়

গণতন্ত্র সূচকে বাংলাদেশের ৮ ধাপ অগ্রগতি

স্বনামধন্য ব্রিটিশ সাময়িকী দ্য ইকোনমিস্ট ম্যাগাজিনের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান দ্য ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের সবশেষ গণতন্ত্র সূচকে আট ধাপ অগ্রগতি হয়েছে বাংলাদেশের।বিশ্বের...... বিস্তারিত

22.01.2020 | 05:18 PM




রাজধানী

বনানীতে সড়ক দুর্ঘটনায় পথচারী নিহত

রাজধানীর বনানীর চেয়ারম্যান বাড়ি মোড়ে রাস্তা পার হতে গিয়ে বাসের ধাক্কায় এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। নিহত ব্যক্তির নাম নুরুল ইসলাম...... বিস্তারিত

22.01.2020 | 09:22 AM

চট্টগ্রাম

উখিয়ায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড

কক্সবাজারের উখিয়া ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে প্রায় অর্ধশত দোকানের মালামালসহ ভস্মীভূত হয়েছে। এতে প্রায় কয়েক কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে ধারণা করছেন ক্ষতিগ্রস্তরা। গতকাল...... বিস্তারিত

22.01.2020 | 09:20 AM

ফেইসবুকে নিউজ ৭১ অনলাইন

ধর্ম

ইসলাম পারস্পরিক সুধারণার নির্দেশ দেয়

ইসলাম মানুষের আত্মকেন্দ্রিকতার চেয়ে সামাজিকতার প্রতি বেশি গুরুত্ব দিয়ে থাকে। গুরুত্ব দেয় সবার প্রতি মানবিক, উদার  ও বন্ধুসুলভ আচরণের। এসব...... বিস্তারিত

17.01.2020 | 11:57 AM

বিনোদন

মোদির ওপর ক্রুদ্ধ হয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য নাসির উদ্দিন শাহর

ভারতে বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইন বাতিলের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশি নির্যাতনের প্রতিবাদ জানিয়েছেন বলিউডের প্রখ্যাত অভিনেতা ও নাট্যব্যক্তিত্ব নাসির উদ্দিন...... বিস্তারিত

21.01.2020 | 10:26 AM

সর্বশেষ সংবাদ

সব পোস্ট

English News

সম্পাদকীয়

বিশেষ প্রতিবেদন

মানুষ মানুষের জন্য

আমরা শোকাহত

অতিথি কলাম

সাক্ষাৎকার

অন্যরকম

ভিডিওতে ৭১এর মুক্তিযোদ্ধের ইতিহাস

ভিডিও সংবাদ