মোঃ ইব্রাহিম হোসেন

জঙ্গী সন্ত্রাস প্রতিরোধে মুসল্লিদের সঙ্গে মতবিনিময়

জঙ্গী সন্ত্রাস প্রতিরোধে জনমত সৃষ্টির লক্ষ্যে মোহাম্মদপুর থানা পুলিশের উদ্যোগের অংশ হিসেবে আজ ১৯ জানুয়ারি ২০১৮ রোজ শুক্রবার, বাইতুর রহমান জামে মসজিদ, চাঁদ উদ্যান হাউজিং, মোহাম্মদপুর, ঢাকা মুসল্লিদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। মসজিদে জুমার নামাজের আগে মুসল্লিদের উদ্যেশ্যে মোহাম্মদপুর থানার অত্যান্ত স্বনামধন্য, পরিশ্রমী ও সৎ  অফিসার ইনচার্জ জামাল উদ্দিন মীর বলেন, কোন ধর্মই মানুষ হত্যা সমর্থন করে না। যারা সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করে তাদের কোন ধর্ম নাই। বাংলাদেশের জনগণ কোনও ধর্মাদ্ধ-উগ্রবাদি গোষ্ঠীর কাছে মাথা নত করেনি। সন্ত্রাসীদের কোন ভাবেই প্রশ্রয় দেওয়া যাবে না। এদের বিরুদ্ধে প্রতিটি পাড়ায়-মহল্লায় প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

তিনি বলেন গুলশানে হামলা, শোলাকীয়া ঈদগাহে হামলা, ধর্মীয় উপসনালয় গুলোতে আক্রমন ও বোমা হামলার মাধ্যমে দেশকে অস্থিতিশীল ও বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি হেয় করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। ধর্মের নামে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসবাদ ও সাম্প্রদায়িকতাকে উস্কে নিরীহ নিরস্ত্র সাধারণ মানুষকে হত্যা করে হীন রাজনৈতিক স্বার্থ চরিতার্থ করতে চাচ্ছে। এ অপশক্তি দেশের ক্রমবর্ধমান উন্নয়ন ও অগ্রগতির ধারাকে ব্যাহত করে দেশে সন্ত্রাসবাদ কায়েম করতে চাচ্ছে। এরাই পবিত্র ধর্ম ইসলাম ও মানবতার শক্র, দেশ ও দেশের গণতন্ত্র উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রার শক্র। 

আমরা আগে মনে করতাম হয়তো মাদ্রাসার গরীব ছাত্রদের টার্গেট করে ধর্মাদ্ধ-উগ্রবাদি গোষ্ঠীরা এগুলি করছে,। আসলে সেটা পুরাপুরি সটিক না। এখন আমরা দেখতে পাচ্ছি দেশের সাম্প্রতিক জঙ্গিবাদী কর্মকান্ডে উচ্চবিত্ত পরিবারের সন্তানদেরকে ধর্মের অপব্যাখ্যা ও মগজ ধোলাইয়ের মাধ্যমে বিপথগামী করা হচ্ছে। ধর্মান্ধতা বা ধর্ম সম্পর্কে ভালোভাবে না জানা এবং বোঝার কারণেই কোমলমতি শিার্থীরা জঙ্গিবাদে জড়িয়ে পড়ছে।

তিনি আরো বলেন, অন্যায়ভাবে একজন মানুষ হত্যা করাকে কোরআনে কারিমে সমগ্র মানবজাতিকে হত্যা করার নামান্তর আখ্যায়িত করা হয়েছে। মহান আল্লাহ পবিত্র কোরআনুল কারিমে অন্যায়ভাবে হত্যা এবং বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অপরাধ সম্পর্কে ইরশাদ করেন-যে ব্যক্তি কাউকে হত্যা করল সে যেন দুনিয়ার সব মানুষকেই হত্যা করল, আর কেউ কারও প্রাণ রক্ষা করল সে যেন সব মানুষের প্রাণ রক্ষা করল। অন্যায়ভাবে হত্যার শাস্তি সম্পর্কে আল্লাহতায়ালা ইরশাদ করেন- কেউ ইচ্ছাকৃতভাবে কোন মুমিনকে হত্যা করলে তার শাস্তি জাহান্নাম, সেখানে সে চিরস্থায়ী হবে এবং আল্লাহ তার প্রতি রুষ্ট হবেন, তাকে লা’নত করবেন এবং তার জন্য মহাশাস্তি প্রস্তÍত রেখেছেন।

জঙ্গি-সন্ত্রাস প্রতিরোধ বাড়ির মালিকদেরকে ভাড়াটিয়াদের তথ্য সংগ্রহের অনুরোধ জানিয়ে বলেন, অপরাধী ও জঙ্গীরা বিভিন্ন এলাকায় ভ‚য়া পরিচয় দিয়ে অনেক সময় বাসা ভাড়া করেন। বেশ কিছু বাসায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে বিস্ফোরকও উদ্ধার করছে। ভাড়াটিয়াদের সঠিক তথ্য ও ছবি থাকলে তাদেরকে চিহ্নিত করা সহজ হবে। এ সব দুর্ঘটনা ঘটার আগেই ভাড়াটিয়াদের তথ্য সংগ্রহ করে থানাতে জমা দিবেন। তাছাড়াও আপনাদের বাসা বাড়ীতে কাজের ছেলে-মেয়ে ও ড্রাইভার রাখেন, তাদের বিষয়ও সঠিক তথ্য সংগ্রহ করে থানাতে জমা দিবেন।। তারা যদি আপনাদের বাসা বাড়ীতে কোন রকম দুর্ঘটনা ঘটায় তাহলে আমাদের চিহ্নিত করতে সহজ হবে। মোহাম্মদপুরে এমনও ঘটনা ঘটছে বাসা বাড়ীতে কাজের ছেলে-মেয়ে ও ড্রাইভার চুরি করে পালিয়ে গেছে কিন্তু বাসার মালিক থানাতে এসে তাদের কোন তথ্য দিতে পারে নাই।   

তিনি জঙ্গীবাদ-সন্ত্রাস ও মাদকাসক্তির বিষয়ে অভিভাবকদের প্রতি সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়ে বলেন, আমার আপনার সন্তান কোথায় যায়, কি করছে, কাদের সঙ্গে মিশছে, সময় মতন স্কুল-কলেজ থেকে বাসা বাড়ীতে আসছে কিনা, ল্যাপটপ-মোবাইল ইন্টারনেটের মাধ্যমে কোন খারাপ লোকজনের সাথে যোগাযোগ করছে কিনা, সে সব বিষয়ে অবশ্যই খোজ খবর রাখতে হবে। সন্তানদের যদি কোন সমস্যা থাকে সেটা ভাল করে শোনা এবং তাদের সঙ্গে পারস্পরিক একটি আস্থার সম্পর্ক  তৈরী করা।