কুবি শিক্ষার্থীর মৃত্যুতে স্থগিত হেমন্ত উৎসব

প্রকাশিত: ১০:৫৬ অপরাহ্ণ , নভেম্বর ৩০, ২০২২

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী ও সংবাদকর্মী নাজমুল সবুজ এর মৃত্যুতে পুরো ক্যাম্পাস জুড়ে বইছে শোকের মাতম। এই কারণে বুধবার (৩০ নভেম্বর) একই দিনে পূর্বনির্ধারিত গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অনুষ্ঠিতব্য ‘হেমন্ত উৎসব-১৪২৯’ স্থগিত করেছে বিভাগটি।

বুধবার (৩০) সকালে বিভাগীয় জরুরি মিটিং শেষে এ সিদ্ধান্ত জানানো হয়। সাংবাদিকতা বিভাগের নেওয়া এমন সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানাচ্ছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

লোক প্রশাসন বিভাগের শিক্ষার্থী আনিকা তাসনিম সুপ্তি বলেন, আমার বিভাগের বড় ভাইয়ের আকস্মিক মৃত্যুতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সবাই চরম শোকাহত। এমন অবস্থায় এ ধরনের উৎসব হলে হয়তো তা আমাদের খারাপ লাগত। উৎসব বন্ধের তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্ত নেওয়ায় আয়োজকদের কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। তারা সাধারণ শিক্ষার্থীদের আবেগের জায়গাটিকে সম্মান করেছেন যা প্রশংসনীয়।

আইন বিভাগের শিক্ষার্থী তরিকুল ইসলাম বলেন, এটা জেনে ভালো লাগছে যে পূর্ব নির্ধারিত হেমন্ত উৎসব স্থগিত করেছে বিভাগটি। আমার দৃষ্টিতে অত্যন্ত যৌক্তিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। এই প্রোগ্রাম স্থগিতের ব্যাপারটা এটাই প্রমান করে যে আমরা সবাই একই পরিবারের সদস্য এবং একজনের সফলতায় সবাই উৎযাপন করি আবার একজনের দুঃখে সবাই ব্যথিত হই।

আয়োজন স্থগিতের বিষয়ে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান কাজী এম. আনিছুল ইসলাম বলেন, ‘সবুজ আমাদের সন্তান। সন্তানের মৃত্যুতে বাবারা উৎসব করতে পারে না।’

উল্লেখ্য, হার্টের চিকিৎসার জন্য ২২ নভেম্বর ভারতের নয়া দিল্লিতে গিয়েছিলেন সবুজ। চিকিৎসা শেষে ২৯ (নভেম্বর) মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ঢাকা এসে পৌঁছান। এরপর রাত ১১ টার দিকে তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। এরপর বুধবার সকাল ১০টায় কুমিল্লা ক্যান্টনমেন্টের ফরিজপুরে তার বর্তমান বাড়িতে প্রথম জানাজার নামাজ শেষে বেলা সাড়ে ১১টায় দ্বিতীয় জানাজা কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে সম্পন্ন হয়। এরপর তার নিজ এলাকা কুমিল্লার বুরিচংয়ে দাফন করা হয়।