বিশ্বে বায়ু দূষণে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ঢাকায়

প্রকাশিত: ১০:৪২ পূর্বাহ্ণ , নভেম্বর ১৩, ২০২২

জনবহুল শহর রাজধানী ঢাকার বাতাসের মান ‘খুবই অস্বাস্থ্যকর’ পর্যায়ে রয়েছে। বায়ু দূষণে বিশ্বে আজ প্রথম অবস্থানে আছে পাকিস্তানের লাহোর। আর ঢাকা রয়েছে দ্বিতীয় অবস্থানে।

রোববার (১৩ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ৮টার দিকে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বিশ্বের বায়ুমান যাচাই বিষয়ক প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান ‘এয়ার ভিজ্যুয়ালের’ বায়ুমান সূচক (একিউআই) ইনডেক্সে দ্বিতীয় অবস্থানে উঠে এসেছে ঢাকা।

ঢাকার বায়ুর মান ২৫৩, যা মাত্রার দিক থেকে খুবই অস্বাস্থ্যকর অবস্থায় আছে। এদিকে প্রথম অবস্থানে আছে পাকিস্তানের লাহোর, যার মাত্রা ৩০৪, তৃতীয় অবস্থানে আছে দিল্লি, মাত্রা ২০২।

একিউআই স্কোর ১০০ থেকে ২০০ পর্যন্ত ‘অস্বাস্থ্যকর’ হিসেবে বিবেচিত হয় বিশেষ করে সংবেদনশীল গোষ্ঠীর জন্য। একইভাবে একিউআই স্কোর ২০১ থেকে ৩০০ হলে স্বাস্থ্য সতর্কতাসহ তা জরুরি অবস্থা হিসেবে বিবেচিত হয়।

এ অবস্থায় শিশু, প্রবীণ এবং অসুস্থ রোগীদের বাড়ির ভেতরে এবং অন্যদের বাড়ির বাইরের কার্যক্রম সীমাবদ্ধ রাখার পরামর্শ দেয়া হয়ে থাকে।

বাংলাদেশে একিউআই নির্ধারণ করা হয় দূষণের পাঁচটি ধরনকে ভিত্তি করে- বস্তুকণা (পিএম১০ ও পিএম২ দশমিক ৫), এনও২, সিও, এসও২ ও ওজোন (ও৩)।

ঢাকা দীর্ঘদিন ধরে বায়ু দূষণে ভুগছে। এর বাতাসের গুণমান সাধারণত শীতকালে অস্বাস্থ্যকর হয়ে যায় এবং বর্ষাকালে কিছুটা উন্নত হয়।

গত সপ্তাহে বেশিরভাগ দিনই ঢাকার অবস্থান ছিল ৫ থেকে ১০-এর ঘরে। এদিকে দিল্লি ছিল প্রায়ই দিনই প্রথম স্থানে। এমনকি দূষণের কারণে গত সপ্তাহে বন্ধ ঘোষণা করা হয় দিল্লির অনেক স্কুল।

বাংলাদেশের বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ঢাকার এই দূষণের মাত্রা আরও বাড়তে পারে। শুষ্ক মৌসুম এলেই বেড়ে যায় এই শহরের দূষণের মাত্রা। সরকারি নানা উদ্যোগের কথা বলা হলেও বাস্তবে দিনের পর দিন বেড়েই চলেছে এই মাত্রার পরিমাণ।

এদিকে, বায়ুদূষণ রোধে এবার শক্ত পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। বায়ুদূষণের দায়ে শিল্প কলকারখানাগুলোর ক্ষেত্রে মোটা অঙ্কের জরিমানার পাশাপাশি আইনানুগ ব্যবস্থার বিধান রেখে নতুন আইন প্রস্তাব করেছে জোটটি।

শুধু বায়ুদূষণ নয়, শিল্পাঞ্চলের বিষাক্ত বর্জ্যে পানির দূষণ রোধেও নেওয়া হচ্ছে নানা পদক্ষেপ। এরই মধ্যে ইইউর পক্ষ থেকে এ সংক্রান্ত একটি আইন প্রস্তাব করা হয়েছে বলে জোটের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।