ভিক্ষুকের কাছে চাঁদাবাজি, চেয়ারম্যানের স্বামী আটক

প্রকাশিত: ১০:০১ পূর্বাহ্ণ , আগস্ট ১৬, ২০২২

এই আটকের বিষয়টি মঙ্গলবার(১৬ আগষ্ট) গনমমাধ্যম কে নিশ্চিত করেন, সালথা থানার অফিসার ইনচার্জ।জানাযায়,ফরিদপুরের সালথা উপজেলায় এক ভিক্ষুককে প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘর পাইয়ে দেয়ার কথা বলে চাঁদাবাজির অভিযোগে হায়দার মোল্যা(৫৫) নামে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ।

সোমবার (১৫ আগষ্ট) গভীর রাতে সালথা থানা এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। আটক হায়দার মোল্যা সালথা উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রুপা বেগমের স্বামী বলে জানা যায়।

অভিযোগ রয়েছে, আব্দুর রহমান নামের এক ভিক্ষুককে প্রধানমন্ত্রীর উপহার আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘর পাইয়ে দেয়ার কথা বলে ২৫ হাজার ৫’শ টাকা নেয় উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানের স্বামী হায়দার মোল্যা।

পরে সেই টাকা চাইতে গেলে ওই ভিক্ষুককে বিভিন্ন সময়ে হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছে সালথা উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রুপা বেগমের স্বামী হায়দার মোল্যা ও তার ভাই।

এছাড়া উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রুপা বেগমও বিভিন্ন লোকজন দিয়ে হুমকিধামকি দিচ্ছেন বলেও অভিযোগ ভুক্তভোগী ভিক্ষুকের পরিবারের।

পরে এঘটনায় সালথা থানায় সোমবার সন্ধ্যায় চাঁদাবাজি ও হুমকিধামকির অভিযোগ এনে একটি এজাহার দায়ের করেন ভিক্ষুক আব্দুর রহমান।

এজাহারে উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রুপা বেগমের স্বামী হায়দার মোল্যা ও উক্ত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানের ভাই মোকাদ্দেস মাতুব্বরকে আসামি করা হয়। পরে এজাহার দায়েরের প্রেক্ষিতে হায়দার মোল্যাকে গ্রেপ্তার করে সালথা থানা পুলিশ।

সালথা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শেখ সাদিক আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে আরে বলেন, উপজেলার কুমারপট্টি এলাকার আব্দুর রহমান নামের এক ভিক্ষুকের কাছে থেকে প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঘর পাইয়ে দেয়ার কথা বলে টাকা নেয়া ও তাকে হুমকিধমকি দেয়ার অভিযোগে সালথা থানায় একটি এজাহার দায়ের করেন ওই ভিক্ষুক। পরে এজাহার দায়েরের প্রেক্ষিতে হায়দার মোল্যা নামের এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। এব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে পুলিশ কাজ করছে।