উৎপাদন ও বিদেশি বিনিয়োগ বাড়াতে হবে’

প্রকাশিত: ৪:৪৯ অপরাহ্ণ , জুলাই ৩১, ২০২২

বাজারভিত্তিক প্রতিযোগিতার চাইতে উৎপাদন ও বৈদেশিক বিনিয়োগ বাড়ানোর তাগিদ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সুদক্ষ কারিগর হিসেবে তরুণদের গড়ে তুলতে কারিগরি প্রশিক্ষণ নেয়ারও নির্দেশ দেন তিনি।

‘জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ’-এর গভর্নিং বোর্ডের প্রথম সভা বসে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মন্ত্রীসভা কক্ষে। এতে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সরকারপ্রধান বলেন, পরিবর্তনশীল আধুনিক বিশ্বের সাথে তাল মেলাতে আন্তর্জাতিকমানের নাগরিক হিসেবে নিজেদেরকে প্রমাণ করতে হবে।

বলেন, “আমরা চাই আমাদের দেশের প্রতি যুবক সুদক্ষ কারিগর হিসাবে গড়ে উঠুক। শুধু নিয়মমাফিক পড়াশোনা করাই শুধু না, সেইসাথে, যেহেতু বিশ্ব আজকে প্রযুক্তির যুগে যাচ্ছে, প্রতিনিয়ত পরিবর্তনশীল এই সমাজে আমাদের দেশের যারা প্রজন্মের পর প্রজন্ম আসবে তারাও যেনো একইসাথে সেই দক্ষতা নিয়েই যাতে সমাজে তাদের অবস্থান ঠিক করতে পারে, সেটাই আমাদের লক্ষ্য। তাই আমরা চাই শুধু আমাদের দেশে না আন্তর্জাতিক পর্যায়েও সবাই যেনো যথাযথ প্রশিক্ষণ নিয়েই কর্মক্ষেত্রে প্রবেশ করতে পারে।”

শ্রমবাজারে বিদ্যমান সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে তরুণ সমাজকে দক্ষ করে গড়ে তলার তাগিদ দেন তিনি। বলেন, “উপযুক্তভাবে নিজেদের গড়ে তুলবে, শুধু শ্রমবাজার নয়, কৃষি, শ্রম, শিল্প সবদিক থেকেই, কারণ বিশ্ব একটা গ্লোবাল ভিলেজ, কাজেই সবদিকেই উন্মুক্ত হচ্ছে। সেখানে আমাদের অনেক কর্মীই বিদেশে কাজও করে। আমরা চাই তাদের একটু দক্ষ জনশক্তি হিসাবে গড়ে তোলা। আমার কাজ আমি করে খাবো, দরকার হলে চাকরির পেছনে ছুটবো না, নতুন চাকরি দেবো, এভাবেই কিন্তু আমরা সবাইকে উদ্বুদ্ধ করে যাচ্ছি।”

উৎপাদন ও বৈদেশিক বিনিয়োগ বাড়ানোর জন্য সব ধরনের পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী। বলেন, “যেহেতু আমরা উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হয়েছি, তাহলে আমাদের সেইভাবে, নিজেদের প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে যে আমরা বাজার ভিত্তিক প্রতিযোগিতা থেকে উৎপাদনভিত্তিক প্রতিযোগিতা এবং বৈদেশিক বিনিয়োগ বৃদ্ধির দিকে আমাদের যেতে হবে। উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি এবং বৈদেশিক বিনিয়োগে আকৃষ্ট করার জন্য আমাদের প্রয়োজন আমাদের দক্ষ জনশক্তি।”

বিদেশে কর্মী পাঠানোর ক্ষেত্রেই নয়, একাডেমিক পড়াশোনার পাশাপাশি সবক্ষেত্রেই কারিগরি শিক্ষার প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

##একুশে টেলিভিশন , ঢাকা।