সিঙ্গাপুর বানাতে গিয়ে আজিমপুর বানিয়ে ফেলছে

প্রকাশিত: ৪:৪৫ অপরাহ্ণ , জুলাই ২১, ২০২২

সরকার বিরোধী আন্দোলনে ‘ডাইরেক্ট অ্যাকশন’ চান বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) দুপুরে জাতীয় প্রেসসক্লাবের সামনে এক বিক্ষোভ সমাবেশে দলটির নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে এ আশা প্রকাশ করেন তিনি। জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণের উদ্যোগে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে কটূক্তির প্রতিবাদে এ বিক্ষোভ সমাবেশ হয়।

গয়েশ্বর চন্দ্র বলেন, দেশের বর্তমান অবস্থা থেকে মুক্তির একটাই পথ- সেটা হলো শেখ হাসিনাকে ক্ষমতাকে থেকে নামানো। এজন্য পদত্যাগের পাসপোর্ট উঠাতে হবে। এই পাসপোর্টওয়ালা কাজটাই এখন আমাদের জরুরি।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য বলেন, মানুষের ধৈর্য্যের বাঁধ ভেঙে গেছে। আমাদের এই বক্তব্য বোধহয় কেউ আর শুনতে চায় না। সবাই কী দেখতে চায়? অ্যাকশন। যে অ্যাকশন করলে সব পর্যায়ের জনগণ পথে নামবে। সুতরাং সেই আগের কথায় ফিরে যান- অ্যাকশন, অ্যাকশন, ডাইরেক্ট অ্যাকশন। এজন্য প্রস্তুতি নিন।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়ালের বক্তব্যের সমালোচনা করে গয়েশ্বর চন্দ্র বলেন, সিইসি বলেছেন, ভোটের দিন যদি কেউ তলোয়ার নিয়ে আসে তাহলে পাল্টা রাইফেল নিয়ে নামবেন। আমরা যদি তলোয়ার আর রাইফেলই হাতে নিই, তাহলে আবার নির্বাচন পর্যন্ত অপেক্ষা করব কেন, তার আগেই তো আপনাদের বিদায় করতে পারি!

গয়েশ্বর বলেন, অনেক উদ্ভট প্রতিশ্রুতি দিয়ে সরকারে এসে সর্বপ্রথম বলল যে, বাংলাদেশকে সিঙ্গাপুর বানাবে। সিঙ্গাপুর বানাতে গিয়ে দেশটাকে আজিমপুর বানিয়ে ফেলেছে। বিদ্যুত দেব? ২৬ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুত, আমাদের প্রয়োজন ১১ হাজার মেগাওয়াট। এখন তাও পাওয়া যাচ্ছে না। কুইক রেন্টালের নামে লাখ লাখ কোটি টাকা যে লুটপাট করেছে এই টাকা বিদেশে পাচার হয়েছে। পদ্মা সেতুর স্টিমেট হয়েছিল ১১ হাজার কোটি টাকা আজকে এই সেতু নির্মাণে কত টাকা ব্যয় হয়েছে তা কিন্তু এখনও আমরা জানি না।

তিনি বলেন, আমার দেশে গ্যাসের দাম বাড়ে, গ্যাস দিতে পারে না। প্রতিবেশী দেশে গ্যাস রফতানি সৃষ্টি করে তিনি বসে আছেন। আমার দেশের মানুষ শুষ্ক মৌসুমে পানি পায় না। অথচ ফেনী নদী পানি তাদের (ভারত) খাবার জন্য আমাদের দিতে হয়। বর্ষা মৌসুমে যখন তাদের পানি বাড়ে তখন সুইস গেইট খুলে দিয়ে আমাদের পানিতে ডুবিয়ে মারে।

মহানগর দক্ষিণের সভাপতি এসএম জিলানির সভাপতিত্বে ও দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম ও উত্তরের গাজী রেজওয়ানুল হোসেন রিয়াজের সঞ্চালনায় সমাবেশে বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আবদুস সালাম, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর সরফত আলী সপু, মহানগর বিএনপির ইশরাক হোসেন, যুব দলের শফিকুলইসলাম মিল্টন, স্বেচ্ছাসেবক দলের মোস্তাফিজুর রহমান, সাইফুল ইসলাম ফিরোজ, গোলাম সারোয়ার, শাহাবুদ্দিন মুন্না, ইয়াসীন আলী, ফখরুল ইসলাম রবিন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।