ট্রাকচাপায় অন্তঃসত্ত্বা মায়ের মৃত্যু, পেট ফেটে জন্ম নিল নবজাতক

প্রকাশিত: ১১:৪৮ অপরাহ্ণ , জুলাই ১৬, ২০২২

ময়মনসিংহের ত্রিশালে ট্রাকচাপায় স্বামী-স্ত্রী ও সন্তানের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় অলৌকিকভাবে বেঁচে গেছে গর্ভে থাকা সাত মাস বয়সী নবজাতক। বাচ্চাটি সুস্থ আছে। বর্তমানে বাচ্চাটি ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।
শনিবার (১৬ জুলাই) দুপুর পৌনে ৩টার দিকে পৌর শহরের ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের খান ডায়াগনস্টিক সেন্টারের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, স্বামী জাহাঙ্গির আলম, স্ত্রী রত্না বেগম ও শিশু সন্তান সানজিদা। তাদের বাড়ি ত্রিশাল উপজেলায়।

জানা গেছে, অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর আলট্রাসনোগ্রাফি করাতে বাড়ি থেকে ত্রিশাল এসেছিলেন জাহাঙ্গির। রাস্তা পারাপারের সময় ময়মনসিংহ গামী একটি ট্রাক তাদের চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই স্বামী, স্ত্রী ও সন্তান মারা যায়। কিন্তু অলৌকিকভাবে বেঁচে গেছে গর্ভে থাকা সাত মাস বয়সী নবজাতক। সড়ক দুর্ঘটনার সময় অন্তঃসত্ত্বা নারীর পেট ফেটে সাত মাসের নবজাতক বেরিয়ে যায়। তবে, আশার কথা হলো, নবজাতক বেঁচে আছেন। তাকে ভর্তি করা হয়েছে ময়মনসিংহের সিবিএমসিবি হাসপাতালে।

ত্রিশাল থানার ওসি মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, নিহত স্বামী-স্ত্রী ও তাদের ৫ বছরের সন্তান নিয়ে ওই অন্তঃসত্ত্বা নারীর আলট্রাসনোগ্রাফি করাতে এসেছিল। রাস্তা পারাপারের সময় ময়মনসিংহ গামী একটি ট্রাক তাদের চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই স্বামী, স্ত্রী ও সন্তান মারা যায়। এ সময় অন্তঃসত্ত্বা রত্না বেগমের পেটে থাকা শিশু চাপ খেয়ে সড়কেই প্রসব হয়। নবজাতক মেয়ে বাচ্চাটিকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য বাচ্চাটিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে।