নাইজেরিয়ার গির্জায় গোলাগুলি, শিশুসহ নিহত ৫০

প্রকাশিত: ১১:১৫ পূর্বাহ্ণ , জুন ৬, ২০২২

নাইজেরিয়ার একটি ক্যাথলিক গির্জায় প্রার্থনারত থাকা অবস্থায় বন্দুকধারীদের গুলিতে নারী ও শিশুসহ অন্তত ৫০ জনের মৃত্যু হয়েছে। নিহতদের মধ্যে অনেকেই শিশু বলে জানা গেছে।

রোববার (৫ জুন) ওন্ডো রাজ্যের ওয়ো শহরের সেইন্ট ফ্রান্সিস ক্যাথলিক চার্চে প্রার্থনার সময় প্রার্থনাকারীদের লক্ষ্য করে বন্দুকধারীরা এলোপাতাড়ি গুলি চালালে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে।

শহরের জনপ্রতিনিধি এবং ঘটনাস্থলের কাছাকাছি এলাকার অধিবাসী আদেলেগবে তিমিলেইন বলেন, ন্যাক্করজনক এই হামলায় অন্তত ৫০ জন নিহত হয়েছেন।

ওন্ডো রাজ্যের গভর্নর রোটিমি আকেরদোলু বলেছেন, “আমাদের হৃদয় ভারাক্রান্ত, আমাদের ও জনগণের শান্তি শত্রুদের দ্বারা আক্রান্ত হয়েছে।”

তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন এবং হাসপাতালে আহত ব্যক্তিদের সঙ্গে দেখা করেছেন এবং এই ঘটনাকে “একটি গণহত্যা” হিসাবে বর্ণনা করেছেন।

ওয়োর একটি হাসপাতালের একজন চিকিৎসক জানিয়েছেন, ৫০টিরও কম মৃতদেহকে ওয়োর ফেডারেল মেডিকেল সেন্টার এবং সেন্ট লুইস ক্যাথলিক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

ওন্ডো রাজ্যের পুলিশের মুখপাত্র ফানমিলায়ো ইবুকুন ওদুনলামি বলেছেন, “বন্দুকধারীরা গির্জার ভবনের বাইরে এবং ভিতরে অবস্থান করা লোকদের ওপর গুলি চালিয়েছে, উপাসকদের হত্যা ও আহত করেছে। পুলিশ হামলার কারণ অনুসন্ধান করছে।”

নাইজেরিয়ার ক্যাথলিক চার্চের মুখপাত্র রেভারেন্ড অগাস্টিন ইকুউ বলেছেন, “এটি খুবই দুঃখজনক যে, যখন পবিত্র চার্চে প্রার্থনাকারীরা সমাবেত হয়েছিল, তখন অজ্ঞাত বন্দুকধারীরা সেন্ট ফ্রান্সিস ক্যাথলিক চার্চে হামলা চালায়। যা চার্চ নীতি লঙ্ঘন করে।”

সেইসঙ্গে চার্চের বিশপ এবং পুরোহিতরা হামলা থেকে অক্ষত অবস্থায় বেঁচে গেছেন বলেও জানান তিনি।

এদিকে, নাইজেরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুহাম্মাদু বুহারি এই হামলার নিন্দা করেছেন এবং এটিকে “জঘন্য হত্যাকাণ্ড” বলে অভিহিত করেছেন।

যদিও কর্তৃপক্ষ তাৎক্ষণিকভাবে মৃতের সঠিক সংখ্যা প্রকাশ করেনি এবং এখনও কোনো গোষ্ঠী এই হামলার দায় স্বীকার করেনি। সূত্র- রয়র্টাস, আল জাজিরা।