কোরআন অবমাননার ঘটনায় সুইডেনকে চীনের কড়া সমালোচনা

প্রকাশিত: ৫:৪১ অপরাহ্ণ , এপ্রিল ২৭, ২০২২

সুইডেনে মুসলিমদের পবিত্র ধর্মীয় গ্রন্থ আল কোরআন অবমাননার ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে বাংলাদেশসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ ও সংস্থাগুলো। এবার এই ইস্যুতে দেশটির কড়া সমালোচনা করেছে চীন। খবর মিডলইস্টমনিটর ও আনাদোলু।

সাম্প্রতিক ঘটনাটি মুসলিম বিশ্বজুড়ে ব্যাপক নিন্দার জন্ম দিয়েছে উল্লেখ করে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ওয়াং ওয়েনবিন বলেন, বাকস্বাধীনতা জাতিগত বা সাংস্কৃতিক বৈষম্যকে উসকে দেওয়া এবং সমাজকে বিচ্ছিন্ন করার কারণ হতে পারে না।

গতকাল বুধবার ওয়াংয়ের উদ্ধৃতি দিয়ে চীনা দৈনিক গ্লোবাল টাইমসের খবরে বলা হয়, আমরা আশা করি সুইডেন মুসলিমসহ সংখ্যালঘু গোষ্ঠীর ধর্মীয় বিশ্বাসকে আন্তরিকভাবে সম্মান জানাবে।

গত সপ্তাহে, সুইডেনের দক্ষিণ লিংকোপিং শহরে পবিত্র কোরআনের কপি পুড়িয়ে দেন ডানপন্থী স্ট্রাম কুরস (হার্ড লাইন) দলের নেতা রাসমুস পালুদান। এর জন্য তিনি অনুতপ্ত নন জানিয়ে ভবিষ্যতে কোরআনের আরো কপি পোড়ানোর হুমকি দেন।

ঘটনাটির খবর ছড়িয়ে পড়লে সুইডেনসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মুসলিমরা বিক্ষোভে ফেটে পড়েন। সুইডেনের ওরেব্রো শহর থেকে বিক্ষোভ শুরু হলেও পরে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে দেশটির রাজধানী স্টকহোম, মালমো, লিংসপিংসহ বিভিন্ন শহরে।

তুরস্ক, সউদী আরবসহ অনেক আরব ও মুসলিম দেশ ও সংস্থা কুরআন পোড়ানোর এই ঘটনার নিন্দা জানিয়েছে। তারা এই কাজটিকে মুসলমানদের বিরুদ্ধে উসকানি হিসেবে অভিহিত করেছে। অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কোঅপারেশন বা ওআইসি এ নিয়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে। সংস্থাটির প্রধান হোসেন ইব্রাহিম ত্বহা মুসলিমবিরোধী বিক্ষোভের সময় পবিত্র কোরআনের কপি পোড়ানোর উস্কানিমূলক কর্মকাণ্ডের নিন্দা জানিয়েছেন।

এদিকে, এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে সুইডেনে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে ২৬ জন পুলিশসহ অন্তত ৪০ জন আহত হয়েছেন। গ্রেপ্তার হয়েছেন ৩৫ জন বিক্ষোভকারী। গত ১৬ এপ্রিল থেকে কোরআন অবমাননার প্রতিবাদে বিক্ষোভ শুরু হয় সুইডেনে। বিক্ষোভকারীরা বেশ কিছু গাড়িতে আগুন দেন।